সংবাদ শিরোনাম

জমি সংক্রান্ত বিরোধে ভাইয়ের হাতে বোন খুন!টাঙ্গাইলে রাতের অন্ধকারে অতর্কিত হামলায় কলেজ ছাত্র নিহতফেনীর সোনাগাজী পৌর মেয়রের জমির শ্রেনী পরিবর্তন করে রাজস্ব ফাঁকি‘ভারতে যারাই ক্ষমতায় এসেছে, তারাই মুসলমানদেরকে শিক্ষা থেকে দূরে রেখেছে’দাপুটে জয়ে সিরিজ শুরু বাংলাদেশেরসাজার বদলে আদালত থেকে দেয়া হলো বই, ১০ শর্তে মুক্তি পেলো ৪৯ শিশুকুয়াকাটায় সৈকতে ডিগবাজি দিতে গিয়ে পর্যটকের মৃত্যুঠাকুরগাঁওয়ে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ডশাহজাদপুরে বসতবাড়িতে চোরাই তেলের অবৈধ গোডাউনে ভয়াবহ আগুন, ৩ জন দগ্ধটাঙ্গাইলে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

  • আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনায় ভারতের উত্তর প্রদেশের মন্ত্রীর মৃত্যু

◷ ৮:৫৭ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, আগস্ট ২, ২০২০ আন্তর্জাতিক
uuuut

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী কমলা রানি বরুণের। রোববার সকালে লখনউয়ের সঞ্জয় গাঁধী পোস্টগ্র্যাজুয়েট মেডিক্যাল সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট (এসজিপিজিআই) মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬২ বছর।

করোনার উপসর্গ নিয়ে ১৮ জুলাই লখনউয়ের সঞ্জয় গাঁধী পোস্টগ্র্যাজুয়েট মেডিক্যাল সায়েন্সেস ইনস্টিটিউট (এসজিপিজিআই)-এ ভর্তি হন কমলরানি বরুণ। ওই দিনই তার কোভিড-রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। এসজিপিজিআই-এর ডিরেক্টর রাধাকৃষ্ণ ধীমান বলেন, “ফুসফুসে সংক্রমণের জন্য মন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। তাকে লাইফসার্পোটে রাখা রেখে সব ধরণের চেষ্টা করা হয়েছিলো।

যোগী আদিত্যনাথ সরকারে কারিগরি দফতরের মন্ত্রী ছিলেন ৬২ বছরের কমলরানি। কানপুরের ঘটমপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক কমলরানি রাজনীতির পাশাপাশি সমাজসেবাতেও নিযুক্ত ছিলেন। তার মৃত্যুর খবর শুনে এ দিনের পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচিও বাতিল করেন মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ। আগামী ৫ অগস্ট রামমন্দিরের ভূমিপূজন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি দেখতে অযোধ্যায় যাওয়ার কথা ছিল উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর।

নিজের মন্ত্রিসভার সদস্যের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন যোগী। তিনি বলেন, ‘ক্যাবিনেট মন্ত্রী কমলা রানি বরুণের পরিবারকে গভীরভাবে সমবেদনা জানাচ্ছি আমি। উনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন এবং লখনউয়ের সঞ্জয় গান্ধী পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেসে ভরতি ছিলেন। উনি অত্যন্ত জনপ্রিয় নেত্রী এবং সমাজকর্মী ছিলেন। মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে উনি দক্ষতার সঙ্গে কাজ করেছিলেন।’

এদিকে শনিবারই উত্তরপ্রদেশে ৩৮৪০ জনের নতুন করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে৷ মৃত্যু হয়েছে ৪৭ জনের। রাজ্যে আক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬ হাজার ৩৭। এর মধ্যে সেরে উঠেছেন ৫১ হাজার ৩৩৪ জন। সবমিলিয়ে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ১৬৭৭ জন৷ সব থেকে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন লখনউয়ে৷