বগুড়ায় যমুনা ও বাঙ্গালী নদীর পানি কমতে শুরু করেছে

৫:০১ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৬, ২০২০ রাজশাহী
zomuna

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি ১২৮ সেন্টিমিটার থেকে পর্যায়ক্রমে ১১২ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার ১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রবল বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে জেলার সারিয়াকান্দি পয়েন্টে যমুনা নদীতে পানি বেড়েছিল।

গত ২৪ ঘণ্টার হিসাব অনুযায়ী এ নদীর পানি আরও কমেছে। অন্যদিকে বাঙ্গালী নদীর পানি কমে বিপদসীমা বরাবর প্রবাহিত হচ্ছে। ৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বিষয়টি সময়ের কণ্ঠস্বরকে নিশ্চিত করেন বগুড়া জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সহকারী প্রকৌশলী মো. হুয়ায়ুন কবির।

যমুনা নদীতে পানি বাড়ায় সারিয়াকান্দি উপজেলার চরাঞ্চলের চালুয়াবাড়ী, কর্নিবাড়ী, কুতুবপুর, চন্দনবাইশা, কাজলা, কামালপুর, রৌহাদহ, বোহাইল ও সারিয়াকান্দি সদরসহ সোনাতলা ও ধুনট উপজেলার মোট ১৮টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল এবং পাট, ধান, ভুট্টা, সবজীসহ ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে গিয়েছিল। যা ধীরে-ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছে।

পানিবন্দি এলাকার অসংখ্য মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয় কেন্দ্র, বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ উঁচু জায়গাগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন। এছাড়া যমুনা চরের অনেকে ঘর-বাড়ি ভেঙে নিয়ে নৌকায় করে নদীর পশ্চিম তীরে চলে আসছেন। বন্যার দুর্যোগ থেকে স্থায়ী সমাধান খুঁজতে চরের পৈত্রিক ভিটেমাটিও ছেড়েছেন অনেকেই।

হুয়ায়ুন কবির সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, যমুনা নদীতে বিপদসীমা নির্ধারণ করা হয় ১৬ দশমিক ৭০ মিটারে। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার হিসেব অনুযায়ী নদীর পানি ১৬ দশমিক ৮৬ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। অর্থাৎ বিপদসীমার ১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, যমুনার শাখা নদী বাঙ্গালী নদীতে বিপদসীমা নির্ধারণ করা হয় ১৫ দশমিক ৮৫ মিটার। এখন এ নদীতে পানি ১৫ দশমিক ৮৫ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অর্থাৎ এ নদীর পানি কমে বিপদসীমা বরাবর প্রবাহিত হচ্ছে।