সংবাদ শিরোনাম
স্কুল ছাত্রী অপহরণ করে ধর্ষণের দায়ে যুবকের ৪৪ বছর কারাদণ্ড | ‘দেশব্যাপী রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান করা হচ্ছে’- অর্থমন্ত্রী | সৃজিতের জন্মদিনে মিথিলার আবেগমাখা শুভেচ্ছা | ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক মামুনকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি | ‘করোনা মোকাবিলায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ সফল’- তথ্যমন্ত্রী | ভিসার মেয়াদ বাড়াতে রাজি সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী | সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা | টাঙ্গাইল ঘারিন্দা ইউপি উপনির্বাচন: মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আ’লীগ প্রার্থী তোফায়েল | ‘মালেকের বিরুদ্ধে সব অভিযোগের দায় তার ব্যক্তিগত’ | ময়মনসিংহে জেএমবি সদস্য গ্রেপ্তার |
  • আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ওএসডি হলেন মাহবুব কবির মিলন

৬:১০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৬, ২০২০ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবির মিলনকে ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়। এ বিষয়ে নিজের ফেসবুকে মাহবুব কবির মিলন লিখেছেন—‘ওএসডি হলাম’।

রেলের সংস্কার নিয়ে নিয়মিত লেখালেখি করায় ফেসবুকে তার ফলোয়ারও অনেক। বিশেষ করে রেলওয়ের যাত্রীসাধারণের কাছে মাহবুব কবির মিলন বেশ জনপ্রিয় একটি নাম। রেলকে জনবান্ধব করতে তিনি বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন।

ওই উদ্যোগের মধ্যে রয়েছে, টিকিট কাটতে এনআইডি বাধ্যতামূলক করা, অনলাইনে টিকিটের টাকা রিফান্ড করা, রেলসেবা অ্যাপের মাধ্যমে ফটো বা ভিডিও যুক্ত করে তাৎক্ষণিত অভিযোগ প্রদানের ব্যবস্থা ইত্যাদি।

মাহবুব কবির মিলনের প্রচেষ্টার কারণে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা বিকাশ তাদের নিরাপত্তায় ব্যাপক পরবর্তন এনেছে। এর ফলে প্রতারকরা আর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা চুরির সুযোগ পাবে না।

এছাড়া তিনি চলতি বছর কোনোরকম দুর্নীতি ছাড়া রেলে বিপুল পরিমাণ নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছিলেন। আগামী বছরও নিয়োগ হওয়ার কথা ছিল। এসব পরিবর্তনসহ অনেক অনিয়মের বিরুদ্ধে তিনি সোশ্যাল সাইট এবং বাস্তবে সবসময় সরব থাকতেন।

এর আগে, মাহবুব কবির মিলন ২০১৭ সালের আগস্ট মাস থেকে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সবশেষ গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে সেখান থেকে গত ২৫ মার্চ তাকে সরিয়ে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে (অতিরিক্তি সচিব) বদলি করা হয়।

উল্লেখ্য, মাহবুব কবির মিলন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষে দায়িত্ব পালনকালে বেশ কিছু বহুজাতিক কোম্পানির ভেজাল ও ক্ষতিকর কোম্পানির পণ্য আটকে দেন। তার প্রচেষ্টায় বর্তমানে চট্টগ্রাম বন্দরে প্রায় ৪৫ কোটি টাকার এমবিএম আটক রয়েছে। সম্প্রতি তিনি কৃষিপণ্যের জন্য আমদানিকারক ৪১টি প্রতিষ্ঠানের ক্ষতিকর পণ্য শনাক্ত করেন। বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পর্যায় থেকে তার ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।