সংবাদ শিরোনাম

যশোরের শার্শায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে গৃহবধুর মৃত্যুকাদের মির্জাকে পাবনা পাঠাতে সরকারকে অনুরোধ করলেন নিক্সন চৌধুরীরংপুরে হিন্দুপল্লিতে তান্ডবের ঘটনায় ৬ আসামি কারাগারেবাউফলে সড়কে অবৈধ উল্কা বন্ধের দাবিতে মানববন্ধনকরোনা ভ্যাকসিন নিবন্ধনের অ্যাপস প্রস্তুতপৌর নির্বাচন সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক হয়েছে: তথ্যমন্ত্রীখালেদা জিয়ার মায়ের ১৩তম মৃত্যু বার্ষিকী পালনকরোনায় আক্রান্ত হাসানুল হক ইনু, হাসপাতালে ভর্তিভারতে টিকা নেয়ার পর ৪৪৭ জনের শরীরে বিরূপ প্রতিক্রিয়া, ১ জনের মৃত্যুহাতিয়ায় নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার-৫

  • আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিনহা হত্যা মামলাঃ প্রদীপসহ ৩ পুলিশ সদস্যের ৭ দিনের রিমান্ড

◷ ৯:২৩ অপরাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৬, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
sinha_prodip

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ পুলিশের গুলিতে সাবেক মেজর সিনহা হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপসহ ৩ আসামিকে ৭ দিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে বাকি ৪ আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) রাত ৮টার দিকে কক্সবাজার আদালতে সিনহা হত্যা মামলায় র‌্যাবের করা রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন বিচারক মো. হেলাল উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার রাতে আদালত প্রাঙ্গণে বাদীপক্ষের প্রধান আইনজীবী মোহাম্মদ মোস্তফা সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান। তিনি জানান, আসামিদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালতের বিচারক তিনজনের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন।

তারা হলেন, ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, প্রধান আসামি লিয়াকত আলী ও এসআই নন্দলাল রক্ষিত। বাকিদের জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

এর আগে একই আদালতের বিচারক মুহাং হেলাল উদ্দিন ৭ আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

আসামিরা হলেন- (১) টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ (২) বাহারছরা শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত পরিদর্শক লিয়াকত আলী (৩) এসআই নন্দলাল রক্ষিত (৪) কনস্টেবল সাফানুর করিম (৫) কনস্টেবল কামাল হোসেন (৬) কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও (৭) এএসআই লিটন মিয়া।

করোনাকালীন হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী, প্রথম দফায় ৪ জন ও দ্বিতীয় দফায় ৩ জন আসামিকে হাজত খানা থেকে কাঠগড়ায় আনা হয়। মামলার বাকি দুইজন আসামি আত্মসমর্পণ করেননি। তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেছেন, মামলায় উল্লেখিত ৮নম্বর আসামি এসআই টুটুল এবং ৯ নম্বর আসামি কনস্টেবল মোস্তফা নামে কোন পুলিশ সদস্য জেলা পুলিশে নেই।

আসামিদের পক্ষে আদালতে এডভোকেট মোহাম্মদ জাকারিয়া ও এডভোকেট রাখাল চন্দ্র মিত্র জামিন আবেদন শুনানি করেন।

পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম, এপিপি এডভোকেট সাঈদ হোসাইন রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে অংশ নেন।