সংবাদ শিরোনাম
বুক ফাটা আহাজারিতে আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে হাটহাজারীর বাতাস | টাঙ্গাইলে এক উপজেলার ইউপি সদস্য, অন্য উপজেলায় পৌর যুবদলের আহবায়ক | ঠাকুরগাঁও সীমান্তে বিএসএফের ধাওয়া খেয়ে নদীতে লাফ, বাংলাদেশির মৃত্যু | পঞ্চগড়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা | ইন্টারনেটে ‘গোপন ছবি’ প্রকাশের হুমকি দিয়ে নারীদের ব্ল্যাকমেইল, যুবক গ্রেফতার | এক নজরে আল্লামা শফীর জীবনী | তিন মাস পর মিয়ানমার থেকে এলো ৩০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ | নালিতাবাড়ীতে নিখোঁজের দুইদিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার | বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে যাওয়ায় প্রেমিকাকে মারপিট! | রংপুরে গাঁজা ও ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার |
  • আজ ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জার্নি করলে অনেকের বমি হয় কেন?

১০:৩১ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৬, ২০২০ জানা-অজানা
jour

জানা-অজানা ডেস্কঃ অনেকেই জার্নির সময় বাসে বমি করে। এটাকে মোশন সিকনেস বলে। এটা কেন হয়? এর জন্য দায়ী হচ্ছে আমাদের কান।

fluid containing bony tube (কানের ভিতরের অংশ) এর কারনে এমন টা হয়ে থাকে। যখন আমাদের মাথা নড়ে তখন কানের ভিতরের এই fluid টাও নড়তে থাকে। আর এই মুভমেন্টের সেনসেশনটা vestibulocochlear nerve এর মাধ্যমে ব্রেইনে গিয়ে মুভমেন্টের সেনসেশন দেয়। এবং সেই অনুযায়ী ব্রেইন আমাদেরকে ব্যালেন্স করার নির্দেশ দেয়।

এখন বাসে যেটা হয়। কান ব্রেইনকে ইনফরমেশন দেয় যে শরীর নড়ছে (the body is moving) যেহেতু বাসে ঝাকিতে কান এর fluid টা নড়তে থাকে। কিন্তু চোখ আবার ব্রেইন কে ইনফরমেশন দেয় “না বডি স্থির আছে ”। দুই রকম ইনফরমেশন পেয়ে ব্রেইন কনফিউজড হয়ে যায়। আর এই ধরনের কন্ডিশনকে ব্রেইন poison হিসেবে রিড করে। তাই poison কে বডি থেকে বের করে দেওয়ার জন্য vagal stimulation হয় আর যার জন্য বমি হয়।

এই কারণে বাসে ঘুমিয়ে পড়লে আর বমি আসে না কারণ চোখ তখন কোন ইনফরমেশন দেয় না ফলে ব্রেইনে কোন কনফিউশান তৈরি হয় না।

বড় হওয়ার সাথে সাথে বমির টেনডেন্সি কমতে থাকে কারণ ব্রেইন এডজাস্ট করে ফেলে এই সিচুয়েশন এর সাথে। আর এডজাস্ট করতে না পারলে তখন বড় হওয়ার পরও বমি হতে পারে।