‘ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হবার নয়’- পররাষ্ট্রমন্ত্রী

৩:০৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০ জাতীয়
momen

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, আমাদের বিজয় মানে ভারতের বিজয়, আমাদের উন্নয়ন মানেই ভারতের উন্নয়ন। কারণ ভারতের সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকেই মধুর সম্পর্ক, নাড়ির সম্পর্ক। ভারতের সঙ্গে এই সম্পর্ক ছিন্ন হবার নয়।

শনিবার মেহেরপুরের ঐতিহাসিক মুজিবনগর পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জাবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, চীন বাংলাদেশকে করোনানার ভ্যাকসিন দেবে এবং তারা প্রায় ৮ হাজার বেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা বাংলাদেশকে দিয়েছে। এটা নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কে কোন বিতর্ক তৈরি হয়নি। এটাকে নিয়ে কেউ কেউ রাজনীতি করার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে সুমদ্র, সীমান্ত, নিরাপত্তাসহ আমাদের বড় ধরণের সব সমস্যা দূর হয়েছে। ছোট ছোট কিছু সমস্যা ঝুলে আছে, ঠিক হয়ে যাবে। মনে রাখবেন ভারতের সঙ্গে আমাদের রক্তের সম্পর্ক। আর চীনের সঙ্গে আমাদের অর্থনৈতিক সম্পর্ক। ভারত-চীনের গন্ডগোল নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন নয়। আগামী বছর আমরা ভারতকে নিয়ে ৫০ বছর পূর্তি উৎসব করবো। কেননা আমাদের বিজয় মানে ভারতের বিজয়। আবার ভারতের বিজয় মানে আমাদের বিজয়।

তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আরিষ্কারে ভারত এবং পাকিস্তান দুটি দেশই অন্যদেশের সঙ্গে যৌথভাবে গবেষণামূলক কাজ শুরু করেছে। সেখানে আমরা কারো সঙ্গে কাজ শুরু করতে পারলাম না, এটা দু:খজনক। আমরা ভ্যাকসিন পেতে ইউরোপিয়ানে অনেক টাকা দিয়ে রেখেছি।

এ সময় মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর পাঁচ খুনি এখনও যারা জীবিত আছে, তার মধ্যে দুইজনের সন্ধান মিলেছে। একজন আমেরিকা এবং একজন কানাডা আছে। আমরা মুজিববর্ষে এই দুই খুনির একজনকে দেশে আনার জোর প্রক্রিয়া চালাচ্ছি। যাদের আনতে পারছি না সেক্ষেত্রে দূতাবাসগুলোকে বলেছি- অন্ততঃ মাসে একবার লোকজন নিয়ে ওই সমস্ত খুনির বাসার সামনে গিয়ে অবস্থান করতে। যেন জনগণের কাছে ধিকৃত হয়।

এর আগে শুক্রবার রাতে আবদুল মোমেন মেহেরপুর আসেন। শনিবার সকাল সোয়া ১০ টার দিকে তিনি সড়ক পথে মুজিবনগর পৌঁছান। এরপরই তিনি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে সঙ্গে নিয়ে স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

এসময় মেহেরপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. জয়নাল আবেদিন, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম শাহিন, মেহেরপুরের পাবলিক প্রসিকিউটর পল্লব ভট্রাচার্য, অধ্যাপক হাসানুজ্জামান মালেকসহ জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী মুজিবনগর কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন।