সংবাদ শিরোনাম
সীমান্ত থেকে ফেরত গেল ১২ হাজার টন ভারতীয় পেঁয়াজ | মানুষের আস্থা পেয়েছি বলেই দেশ স্থিতিশীল আছে: প্রধানমন্ত্রী | দেশে কমেছে করোনা শনাক্ত, মৃত বেড়ে ৫০৯৩ | এই দিনই দিন না, আরও দিন আছে: রিজভী | ‘৭৫ এর মত দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র এখনও চলছে’- প্রধানমন্ত্রী | করোনাপরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সার্কের দেশগুলোকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর | দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যুর সর্বশেষ তথ্য | কিশোরগঞ্জে জনসচেতনতায় মাদকবিরোধী পদযাত্রা অনুষ্ঠিত | টাঙ্গাইলে দূর্গা পূজায় তিন দিনের ছুটিসহ সংখ্যালঘু আইন বাস্তবায়নের দাবিতে মানববন্ধন | ‘ইয়েমেনে পরাজিত সৌদি রাজা সালমান প্রলাপ বকছেন’- ইরান |
  • আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘করোনার চেয়েও বড় সংকট হয়তো সামনে আসছে’- বিল গেটস

৯:২৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক
bill_gates_reuters

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনায় বিপর্যস্ত সারা বিশ্ব। বৈশ্বিক মহামারীতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১ কোটি ৯৬ লাখ ১৫ হাজার ছাড়িয়েছে। আর এ মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭ লাখ ২৫ হাজার। এমন পরিস্থিতিতে মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস বলছেন করোনার চেয়েও বড় সংকট হয়তো সামনে আসছে।

তার মতে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার করোনাভাইরাসকে বেশ গুরুত্ব দিচ্ছে। কিন্তু তাদের উচিত করোনার মতোই জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টিকেও সমান গুরুত্ব দেওয়া।

তিনি বিভিন্ন দেশকে সতর্ক করে বলেছেন, যদি এখনই এ বিষয়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হয় তবে এর প্রভাব হবে আরও ধ্বংসাত্মক। সম্প্রতি এক ব্লগ পোস্টে জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জরুরি বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন বিল গেটস।

ওই ব্লগ পোস্টে বিল গেটস বলেন, করোনাভাইরাসে প্রতি লাখে মৃত্যুহার ১৪। কিন্তু এই শতকের শেষে যদি বর্তমান সময়ে যে হারে কার্বন নির্গমন হচ্ছে সেই হারেই তা চলতে থাকে তবে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণেই প্রতি লাখে অতিরিক্ত আরও ৭৩ জনের মৃত্যু হতে পারে।

তিনি বলছেন, করোনা মহামারি ভয়ংকর কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তন এর চেয়েও ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে কী ধরনের ক্ষতির মুখোমুখি হতে হবে তা বুঝতে কোভিড ১৯-এর প্রকোপ ছড়িয়ে পড়া এবং দীর্ঘ সময় ধরে মানুষকে যে ভুগতে হচ্ছে সে বিষয়ে দৃষ্টি দেওয়া যেতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি সতর্ক করে বলেন, আগামী দুই দশকের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আর্থিক ক্ষতির বিষয়টি এতটাই খারাপ হয়ে উঠতে পারে যে, প্রতি দশকেই একবার করে কোভিড-১৯ মহামারি ঘটার মতো বিষয় হবে।

উল্লেখ্য গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।

এ পর্যন্ত পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৭ লাখ ২৫ হাজার ৩৮৯ জনের। আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৯৬ লাখ ১৫ হাজার ৪৮৪ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ কোটি ২৫ লাখ ৯৪ হাজার ২৭৮ জন।