সংবাদ শিরোনাম

ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয়, ত্যাগের মহিমায় জীবন সাজান: কাদেরআল্লাহ’র সঙ্গে শিরক, নিষিদ্ধ হলো তুরস্কের বিখ্যাত ‘ইভিল আই’ তাবিজক্ষমা চাইলেন এমপি একরামুলএবার এসএসসি-এইচএসসিতে অটোপাস সম্ভব নয়: শিক্ষামন্ত্রীবাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দনসৈয়দপুর-রংপুর মহাসড়ক থেকে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধারনন্দীগ্রামে আন্তজেলা ডাকাত দলের সদস্য গ্রেফতারশাহজাদপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তাদের অর্থায়নে পাকা ঘর পাচ্ছে প্রতিবন্ধী দম্পতিবাংলাদেশে পরীক্ষা চালানোর জন্য ২০ লাখ টিকা দিয়েছে ভারত: রিজভীফরিদপুরের ভাঙ্গায় ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ: ২ স্কুলছাত্র নিহত

  • আজ ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শান্তিরক্ষা মিশনে যোগ দিতে লেবানন যাচ্ছে নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ‘সংগ্রাম’

◷ ৫:০৯ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, আগস্ট ৯, ২০২০ স্পট লাইট
nou

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ লেবাননে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ‘সংগ্রাম’ পূর্বপরিকল্পনা ও পূর্বনির্ধারিত সময়সূচী অনুযায়ী আজ রবিবার (০৯-০৮-২০২০) লেবাননের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম নৌ জেটি ত্যাগ করেছে।

এ সময় চট্টগ্রাম নৌঅঞ্চলের আঞ্চলিক কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল এম মাহ্বুব-উল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জাহাজটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানান। অন্যান্যদের মধ্যে নৌবাহিনীর পদস্থ সামরিক কর্মকর্তাগণ, জাহাজে গমনকারী কর্মকর্তা ও নাবিকদের পরিবারের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসংঘের আওতায় মাল্টিন্যাশনাল মেরিটাইম টাস্কফোর্সের অধীনে ভূ-মধ্যসাগরে বর্তমানে বানৌজা বিজয় দায়িত্ব পালন করছে। জাহাজটি দীর্ঘ ২ বছর ৮ মাস সফলভাবে দায়িত্ব পালন শেষে বানৌজা সংগ্রাম’কে দায়িত্ব হস্তান্তর করবে।

নৌবাহিনী যুদ্ধজাহাজ সংগ্রামের অধিনায়ক ক্যাপ্টেন ফয়সাল মোহাম্মদ আরিফুর রহমান ভূঁইয়া এর নেতৃত্বে সর্বমোট ১৫ জন কর্মকর্তা এবং ৯৫ জন নাবিক শান্তিরক্ষা মিশনে যোগ দিতে লেবাননের উদ্দেশ্যে গমন করেন। বানৌজা বিজয়কে প্রতিস্থাপনের উদ্দেশ্যে গত ১৮ জুন ২০২০ তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে বানৌজা সংগ্রামকে কমিশনিং করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০১০ সাল হতে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ লেবাননে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করে আসছে। লেবাননের ভূ-খন্ডে অবৈধ অস্ত্র এবং গোলাবার”দ অনুপ্রবেশ প্রতিহত করতে দক্ষতার সাথে কাজ করে চলেছে নৌবাহিনী জাহাজ।

পাশাপাশি লেবানীজ জলসীমায় উক্ত জাহাজ মেরিটাইম ইন্টারডিকশন অপারেশন, সন্দেহজনক জাহাজ ও এয়ারক্রাফটের উপর গোয়েন্দা নজরদারী, দূর্ঘটনা কবলিত জাহাজে উদ্ধার তৎপরতা এবং লেবানীজ নৌসদস্যদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে বিশ্ব শান্তিরক্ষায় গুর”ত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।