সংবাদ শিরোনাম
‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আংশিকভাবে খোলার কোন সুযোগ নেই’ | প্রবাসী বাংলাদেশিদের সৌদি আরবে ফেরাতে দুটি বিশেষ ফ্লাইট | ইবির হলে মোটরপাম্প চুরি, দায় এড়াতে ব্যস্ত সবাই | স্কুল ছাত্রী অপহরণ করে ধর্ষণের দায়ে যুবকের ৪৪ বছর কারাদণ্ড | ‘দেশব্যাপী রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান করা হচ্ছে’- অর্থমন্ত্রী | সৃজিতের জন্মদিনে মিথিলার আবেগমাখা শুভেচ্ছা | ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক মামুনকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি | ‘করোনা মোকাবিলায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ সফল’- তথ্যমন্ত্রী | ভিসার মেয়াদ বাড়াতে রাজি সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী | সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা |
  • আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বৈরুতে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২২০, নিখোঁজ শতাধিক

৬:৫১ অপরাহ্ণ | সোমবার, আগস্ট ১০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
bairut

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লেবাননের বৈরুত বন্দরে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২০ জনে। এছাড়াও আহত হয়েছে ৫ হাজারের বেশি নাগরিক। বৈরুতের গভর্নর মারওয়ান আব্বৌদ নিহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছেন। তবে এখনও শতাধিক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। এর মধ্যে বেশ ক’জন বিদেশি শ্রমিক রয়েছেন।

গত মঙ্গলবার ভয়াবহ দুটি বিস্ফোরণের পর লেবাননের শহরটি কেঁপে উঠে। বিস্ফোরণের শব্দে বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। শহরের প্রাণকেন্দ্র থেকে ঘন ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠতে দেখা গেছে। ১৫০ মাইল দূরের এলাকাতেও কম্পন অনুভূত হয়।

মঙ্গলবার বৈরুতের বন্দরের একটি রাসায়নিকের গুদাম থেকে ওই বিস্ফোরণ ঘটে। গুদামটিতে প্রায় ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুদ ছিল এবং তাই বিস্ফোরিত হয়েছিল। এত বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য মজুতের জন্য সরকারের অবহেলাকে দায়ী করে দেশজুড়ে বিক্ষোভে নামে লেবাননবাসী।

বিক্ষোভের মুখে তিনজন মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। সর্বশেষ দেশটির আইনমন্ত্রী সোমবার পদত্যাগ করেছেন। তবে এতেও বিক্ষোভকারীরা শান্ত হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকের আগে সোমবার দুপুরেও নতুন করে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

গভর্নর আব্বৌদ জানান, বিস্ফোরণে এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২০ জনে। নিখোঁজ রয়েছেন ১১০ জন। নিখোঁজদের বড় একটি বিদেশি শ্রমিক ও লরি চালক। ফলে তাদের চিহ্নিত করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

লেবাননের সেনাবাহিনী বন্দরে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করার কথা জানিয়েছে। উদ্ধার অভিযানে কোনও বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিকে আর পাওয়া যাচ্ছে না।

বৈরুতের এই বিস্ফোরণের কারণে ৩০০ কোটি মার্কিন ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করছেন দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা। এছাড়া দেশটির সামগ্রিক অর্থনীতি এক হাজার ৫০০ কোটি ডলারের ক্ষতির শিকার হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন তারা।