সংবাদ শিরোনাম

বাউফলে সড়কে অবৈধ উল্কা বন্ধের দাবিতে মানববন্ধনকরোনা ভ্যাকসিন নিবন্ধনের অ্যাপস প্রস্তুতপৌর নির্বাচন সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক হয়েছে: তথ্যমন্ত্রীখালেদা জিয়ার মায়ের ১৩তম মৃত্যু বার্ষিকী পালনকরোনায় আক্রান্ত হাসানুল হক ইনু, হাসপাতালে ভর্তিভারতে টিকা নেয়ার পর ৪৪৭ জনের শরীরে বিরূপ প্রতিক্রিয়া, ১ জনের মৃত্যুহাতিয়ায় নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার-৫জাতীয় সংসদ দেশের জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার কেন্দ্রবিন্দু: রাষ্ট্রপতিশাহজাদপুরে ইরি-বোরো রোপন শুরু, শৈত্যপ্রবাহের কারণে চিন্তিত কৃষকবগুড়ায় মাটি সরাতেই বেরিয়ে এলো যুবকের অর্ধগলিত লাশ

  • আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘টিকটকের মাধ্যমে চীন ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে বলে প্রমাণ নেই’- সিআইএ

◷ ১০:২৭ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, আগস্ট ১০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
TikTok-China

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চীন সরকার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ‘টিকটক’-এর মাধ্যমে মার্কিন নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে তার পক্ষে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে স্বীকার করেছে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ।

সিআইএ’র কর্মকর্তারা হোয়াইট হাউজকে প্রতিবেদন আকারে এ তথ্য জানিয়েছে বলে খবর দিয়েছে দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস। এতে বলা হয়েছে, চীন সরকার টিকটকের কাছ থেকে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেছে বলে ‘কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’

সিআইএ’র এই প্রতিবেদন এমন সময়ে প্রকাশ পেল, যখন নিরাপত্তাগত বিষয়কে ইস্যু হিসেবে ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন সেখান থেকে চীনা কোম্পানিগুলোকে বের করে দেওয়া কিংবা তাদের কার্যক্রম সীমিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। দেশটির প্রশাসনের দাবি, টিকটক যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য চীন সরকারের হাতে তুলে দিচ্ছে। তবে টিকটকের পক্ষ থেকে এতদিন এই দাবি দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

এত কিছুর পরেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক নির্বাহী আদেশে তার দেশে টিকটকের তৎপরতা ৪৫ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। টিকটক এই আদেশের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের আদালতের দ্বারস্থ হতে যাচ্ছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার আদেশে বলেছেন, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরে টিকটককে চীনা মালিকানা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের মালিকানায় ছেড়ে দিতে হবে। তা না হলে এই সামাজিক মাধ্যমটির তৎপরতা সে দেশে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করা হবে। এখন পর্যন্ত টিকটক কিনে নেওয়ার জন্য যেসব কোম্পানি আগ্রহ প্রকাশ করেছে, সেগুলোর মধ্যে মাইক্রোসফট ও টুইটার অন্যতম।

সুত্রঃ পার্সটুডে