• আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

অপরাধীদের কঠোর শাস্তি চান ডা. আবুল কালাম আজাদ

৭:০২ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৩, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজির করোনা পরীক্ষার প্রতারণার অভিযোগ অনুসন্ধানে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে বেলা ৩টা ২০ মিনিট পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি হেলথ কেয়ার সম্পর্কে যা জানি তা দুদকের অনুসন্ধান দলকে বলেছি। তদন্তাধীন বিষয় সম্পর্কে এ মুহূর্তে আমার পক্ষে এর বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অনিয়ম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কোনও উত্তর দেননি সাবেক এই মহাপরিচালক। বুধবারের (১২ আগস্ট) মতো আজও নিজের দক্ষতা, যোগ্যতা ও নিষ্ঠার কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, ‘কেউ অপরাধ করলে তার কঠোর শাস্তি হোক এটা আমি চাই। এ ব্যাপারে তদন্ত কাজে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার সহযোগিতা করবো।’

আবুল কালাম আজাদ আরো বলেন, ‘রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি হেলথ কেয়ারের বিষয়ে দুদক তদন্ত করছে। সাবেক মহাপরিচালক হিসেবে আমি কী জানি, তার জন্য দুদকের তদন্ত কর্মকর্তা আজ আমাকে আসার অনুরোধ করেছিলেন। আমি যা জানি, তা তাদের বিস্তারিত বলেছি।’

আজ সকাল সাড়ে ৯টার কিছু পরে টানা দ্বিতীয়দিনের মতো দুদক কার্যালয়ে আসেন আবুল কালাম আজাদ। এরপর সকাল ১০টা থেকে দুদকের পরিচালক শেখ মো. ফানাফিল্যার নেতৃত্বাধীন একটি দল তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

এর আগে গতকাল বুধবার সকালে নভেল করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের মাস্ক-পিপিই ক্রয়ে কেলেঙ্কারির ঘটনায় জবাব দিতে দুদকে যান ডা. আবুল কালাম আজাদ।

দুটি অভিযোগ অনুসন্ধানে বক্তব্য নেওয়ার জন্য গত ৬ আগস্ট আবুল কালাম আজাদকে তলব করেছিল দুদক। তলবের চিঠিতে আবুল কালাম আজাদকে ১২ ও ১৩ আগস্ট হাজির হতে বলা হয়।