সংবাদ শিরোনাম
‘করোনা মোকাবিলায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ সফল’- তথ্যমন্ত্রী | ভিসার মেয়াদ বাড়াতে রাজি সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী | সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা | টাঙ্গাইল ঘারিন্দা ইউপি উপনির্বাচন: মনোনয়নপত্র জমা দিলেন আ’লীগ প্রার্থী তোফায়েল | ‘মালেকের বিরুদ্ধে সব অভিযোগের দায় তার ব্যক্তিগত’ | ময়মনসিংহে জেএমবি সদস্য গ্রেপ্তার | একে একে ১২টি বিয়ে, মাইক্রো চালক স্বামীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান স্ত্রীরা | এবার ড্রাইভার মালেকের ‘রাজকীয় দরজা’ ভাইরাল | সৌদি প্রবাসীদের কাছে সোমবার পর্যন্ত সময় চেয়েছেন প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী | রাতে ভোট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই: সিইসি |
  • আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

“ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরি মেরেছে আরব আমিরাত”

৮:৩৫ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ১৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক
amrat

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইসরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি হয়েছে। এই চুক্তির ফলে পশ্চিম তীর অধিগ্রহণের পরিকল্পনা স্থগিত করেছে ইসরাইল। একই সঙ্গে দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক হতে চলেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় এই চুক্তি হয়।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তথাকথিত ‘আব্রাহাম চুক্তির’ বিষয়টি ঘোষণা করেন। এ ঘোষণা শুনেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছে ফিলিস্তিনিরা। তারা আরব আমিরাতের এমন সিদ্ধান্ত দৃঢ়ভাবে প্রত্যাক্ষান করেছেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত ফিলিস্তিনি জাতির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণা দেয়ার পর ফিলিস্তিনের সকল সংগঠন পৃথক পৃথক বিবৃতি দিয়েছে। এ ব্যাপারে তাদের কঠোর প্রতিবাদের কথা জানিয়েছে। তারা একে “পিছন দিয়ে ছুরিকাঘাত” বলে আখ্যায়িত করেছেন।

ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাসেম বলেছেন, এই সমঝোতা ফিলিস্তিনি জাতির স্বার্থ রক্ষা করবে না।

তিনি আরো বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ইহুদিবাদী ইসরাইলের দখলদারিত্ব ও ফিলিস্তিনবিরোধী অপরাধযজ্ঞের ‘প্রতিদান’ হিসেবে তেল আবিবের সঙ্গে এই সমঝোতায় পৌঁছেছে বলে তিনি কটাক্ষ করেন।

হামাসের আরেক মুখপাত্র ফাউজি বারহুম বলেছেন, তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার সিদ্ধান্ত নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাত ফিলিস্তিনি জাতির পিঠে ছুরি বসিয়েছে। এই সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র ইসরাইলের স্বার্থ রক্ষা করবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

এদিকে ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলন বলেছে, এই সমঝোতার মাধ্যমে ইসরাইলের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে নেতানিয়াহুর মন্ত্রিসভাকে পতনের হাত থেকে রক্ষা করা হয়েছে। জিহাদ আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা দাউদ শিহাব এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, আরব আমিরাত এ সিদ্ধান্ত নিয়ে ইসরাইলের মোকাবিলায় নতজানু নীতি গ্রহণ করেছে এবং এর ফলে তেল আবিবের ফিলিস্তিন বিদ্বেষী তৎপরতা আরো জোরদার হবে।

এদিকে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসরাইল আমিরাতের মধ্যকার সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। চুক্তিকে ভয়ানক, মূর্খ কৌশল বলে অভিহিত করা হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত প্রতিরোধ আন্দোলনকে আরো জোরদার করবে মত তেহারানের।

ইরানরে বিপ্লবী গার্ডের সহযোগী বার্তা সংস্থা তাসনিম জানিয়েছে, ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের চুক্তি লজ্জাজনক। ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা এখনো কোনো মন্তব্য করেননি।

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের চুক্তিকে ভণ্ডামি অভিহিত করেছে তুরস্ক। আবুধাবির ভণ্ড আচরণ ইতিহাস কখনো ভুলবে না, ক্ষমা করবে না বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে আঙ্কারা।

তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে। তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের সম্ভাবনাকে সংকুচিত করে দেয়া হয়েছে। ইতিহাস এবং বিবেকবান কেউ আরব আমিরাতের এ ভণ্ড আচরণ কখনোই ভুলবে না ক্ষমা করবে না।

আমিরাতের উচিৎ ছিল ২০০২ সালে আরব লিগ উত্থাপিত শান্তি পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধভাবে পদক্ষেপ নেয়া। ত্রিপক্ষীয় ঘোষণায় ফিলিস্তিনিদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে উদ্যোগ নেয়া অপরিহার্য ছিল। কিন্তু তা না করে আমিরাত মারাত্মক ভয়ংকর এ সিদ্ধান্ত নিল। তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।