সংবাদ শিরোনাম
মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে সহকর্মীদের মানববন্ধন | সন্তানকে বিক্রি করে দিলেন বাবা: ইউরিয়া খেয়ে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্ঠা! | আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া-মোনাজাত | লাশের মিছিল বেড়েই চলেছে, তবুও আলোচনায় নারাজ আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান | বাংলাদেশের সাথে বন্ধ থাকা স্থলবন্দর খুলে দিতে ভারতকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ | কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ’র মৃত্যুতে দেশে একদিনের রাষ্ট্রীয় শোক | ইয়াবা দিয়ে ‘ফাঁসাতে’ গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন এএসআই | কাল হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন ইউএনও ওয়াহিদা | খালেদার যুক্তরাজ্যে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে চান ডিকসন | আবারো দলকে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান মেসির |
  • আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘স্বাস্থ্যসেবার অবদানে করোনায় সংক্রমণ-মৃত্যুর হার কমে গেছে’- স্বাস্থ্যমন্ত্রী

৬:০৫ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ১৫, ২০২০ জাতীয়
sas

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘স্বাস্থ্যসেবার অবদানের কারণে করোনায় মৃত্যুর হার অনেক কমে গেছে। সংক্রমণের হারও কমে যাচ্ছে। সুস্থতার হার বেড়ে যাওয়ায় মানুষের মধ্যে করোনা ভীতি কমেছে। অর্থনীতির চাকা সচল হয়েছে। জীবন-জীবিকা অনেকটা স্বাভাবিক হচ্ছে।’

শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার গড়পাড়ার শুভ্র সেন্টারে আয়াজিত আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন সংগ্রহে বাংলাদেশ যাতে অগ্রধিকার পায় সে ব্যাপারে কয়েকটি দেশের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কিভাবে ভ্যাকসিন আনা যায়।

তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসে পুরো পৃথিবী আক্রান্ত হয়েছে। ইউরোপের প্রতিটি দেশে জনসংখ্যার হার কম হলেও সেখানে মৃত্যুর হার বেশি। বাংলাদেশে মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩২ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা কাজ করেছি। এ পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজার মানুষ করোনায় মৃত্যুবরণ করেছে। সুচিকিৎসা ও যথাযথ স্বাস্থ্যসেবার মাধ্যমে মৃত্যুর হার কমিয়ে রাখতে পেরেছি। দেশ থেকে ধীরে ধীরে করোনার প্রকোপ কমে যাচ্ছে। মৃত্যুর হারও কমে যাচ্ছে।’

জাহিদ মালেক আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি। স্বাধীনতার আগে বাঙালিদের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিকসহ সব ক্ষেত্রেই অধিকার ছিল না। পাকিস্তানিরা পূর্ব পাকিস্তানকে একটি দরিদ্র কলোনি করে রেখেছিল।’

আলোচনা সভায় ও দোয়া মাহফিলে জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস ও পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাড.আব্দুল মজিদ ফটো ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আব্দুস সালামসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।