চীন ও পাকিস্তানকে সমুচিত জবাব দেওয়া হয়েছে: মোদি

৬:২৭ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ১৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
modi

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণের সময় নাম উল্লেখ না করে প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান ও চীনকে সমঝে দেওয়ার বার্তা দিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার মতে “এলওসি থেকে এলএসি পর্যন্ত” যখনই কেউ ভারতের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করেছে ভারতীয় সেনারা তখনই তার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে।

মোদি বলেন, “এলওসি (নিয়ন্ত্রণ রেখা) থেকে এলএসি (প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা) পর্যন্ত যখনই ভারতের সার্বভৌমত্বকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে, আমাদের সেনারা তাদের মতো করে তার কড়া জবাব দিয়েছে।” লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় গত জুন মাসে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে লালফৌজের সংঘর্ষের কথা উল্লেখ করে মোদি বলেন, “ভারতের অখণ্ডতা রক্ষা আমাদের কাছে সবার আগে। আমাদের জওয়ানরা ঠিক কী করতে পারে, দেশ কী করতে পারে, লাদাখের উদাহরণের মাধ্যমে গোটা বিশ্ব তা দেখেছে। যে বীর যোদ্ধারা আত্মবলিদান দিয়েছেন, আজ লালকেল্লা থেকে আমি তাঁদের সেলাম জানাই।”

গত ১৫ জুন লাদাখে চীনা বাহিনীর সঙ্গে সংঘাতে অন্তত ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয়। উত্তেজনা নিরসনে চীনের সঙ্গে আলোচনা চললেও স্বাধীনতা দিবসে মোদির ভাষণকে বেইজিংয়ের জন্য কঠোর সতর্কবার্তা বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, সন্ত্রাসবাদ হোক আর সম্প্রসারণবাদ হোক ভারত উভয়ের বিরুদ্ধেই লড়াই করছে। তিনি বলেন, আজ সারা দুনিয়া ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে (অস্থায়ী সদস্যের) স্থান নিশ্চিত করতে ভারত ১৯২টি দেশের মধ্যে ১৮৪টি ভোট পেয়েছে।’

রেডফোর্ট থেকে টানা সপ্তম স্বাধীনতা দিবসে দেওয়া ২৬ মিনিটের ভাষণে নরেন্দ্র মোদি ‘আত্মনির্ভর ভারত’, ‘ভোকাল ফর লোকাল’ এবং ‘মেইক ইন ইন্ডিয়া টু মেইক ফর ওয়ার্ল্ড’ এর গুরুত্ব আরোপ করেন।

ভারতের দুই প্রতিবেশী দেশের প্রতি ইঙ্গিত করে নরেন্দ্র মোদি বলেন, “প্রতিবেশী শুধু সেই নয় যে আমাদের সীমান্ত এলাকা ভাগ করে নেয়, তাঁরাই প্রকৃত প্রতিবেশী যাঁরা এর সঙ্গে আমাদের হৃদয়ও ভাগ করে নেয়। যেখানে পারস্পরিক সম্পর্কের প্রতি শ্রদ্ধা তৈরি হয়, সেখানেই সম্পর্কে আরও উষ্ণতা আসে। যদি বৃহত্তরভাবে দেখা যায় তাহলে বোঝা যাবে যে ভারতের সঙ্গে অনেক দেশেরই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। আমরা একসঙ্গে কাজ করছি এবং একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধার কারণে পারস্পরিক সম্পর্কও তৈরি হয়েছে।”

করোনাকালে এন ৯৫ মাস্ক উৎপাদন, পিপিই কিট এবং ভেন্টিলেটর তৈরিতে ভারতের সাফল্যের প্রসঙ্গও এসেছে মোদীর বক্তৃতায়। তিনি বলেন, “ভারতে আগে মাস্ক, পিপিই, ভেন্টিলেটর তৈরি হত না। কিন্তু অতিমারি পরিস্থিতিতে আমরা সেই সাফল্য অর্জন করেছি। ১৩০ কোটি মানুষের ভারত শুধু দেশের জন্যই মাস্ক, পিপিই তৈরি করেনি বরং বিশ্বকেও তা দিয়ে সহায়তা করেছে।”