চাঁদপুরে ১২২ কোটি টাকায় ৯টি মডেল মসজিদ হচ্ছে

৩:৫৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, আগস্ট ১৭, ২০২০ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

এস. এম ইকবাল, চাঁদপুর থেকে- সারাদেশের ন্যায় নান্দনিক ও অত্যাধুনিক ডিজাইনে চাঁদপুরে জেলায় সরকারিভাবে ১টি ৮ উপজেলায় ৮টি মডেল মসজিদ ও ইসলামি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ হচ্ছে।

প্রতিটি জেলা-উপজেলায় একটি করে ‘৫৬০ টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলায় এ ৮টি এবং জেলা সদরে ১টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছ্।

এতে সবগুলোর প্রাক্কলিত ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ১২২ কোটি ১৯ লাখ ৮০ হাজার টাকা। গণপূর্ত বিভাগ, চাঁদপুর ২০১৯- ’২০ অর্থ বছর এ প্রকল্পটি গ্রহণ করে এবং ১৪ আগস্ট জুন পর্যন্ত এ সকল মসজিদের অগ্রগতির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, সারাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতি উপজেলায় একটি করে মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের জন্য একটি প্রকল্প প্রকল্প গ্রহণ করে। সে মতে চাঁদপুর জেলার জেলা সদরেরটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫ কোটি ৬১ লাখ ৮১ হাজার টাকা। হাজিগঞ্জ উপজেলার মসজিদটি ব্যয় ধরা হয়েছে ১২ কোটি ৬৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা।

হাইমচর , মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ, কচুয়া, চাঁদপুর সদর ও ফরিদগঞ্জ এ ৬ টি উপজেলার প্রতি ১টির ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। এতে মোট ব্যয় হচ্ছে ৮০ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

এ সকল মসজিদের অগ্রগতির প্রতিবেদনে মতলব উত্তর, হাজীগঞ্জ ও কচুয়া এ ৩টির কাজ প্রায় ৩৫ % সম্পন্ন হয়েছে। বাকিগুলো করোনা সংকটে থমকে আছে বলে জানা গেছে। এগুলো সব মডেল মসজিদের স্থান ইতিমধ্যেই নির্ধারণ করা হয়েছে এবং কাজও শুরু হবে বলে সংস্কৃত গণপূর্ত বিভাগের একজন প্রকৌশলী জানান।

প্রসঙ্গত, সারাদেশে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের কার্যক্রম ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে।

বর্তমান সবকার ২০১৪ সালের নির্বাচনি ইশতেহারে প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে উন্নত মসজিদ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি ছিল। ২০১৫ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি ধর্ম মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে নির্বাচনি ইশতেহার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় লাইব্রেরি, গবেষণা কক্ষ,ইসলামিক সাংস্কৃতিক কার্যক্রম,শিশু শিক্ষা কার্যক্রম এবং পুরুষ ও মহিলাদের পৃথক নামাজ কক্ষ,মেহমানদের আবাসন ব্যবস্থা,বিদেশি পর্যটকদের পরিদর্শনের ব্যবস্থা, হজ যাত্রীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ইত্যাদি সুবিধাসহ মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়।’

২০১৮ সালের ৫ এপ্রিলে ‘প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬০টি মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পের’ আওতায় ৯টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।’