সংবাদ শিরোনাম
হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা | শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত | বাসায় নিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ: এবার ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার | পা হারানো রাসেলকে আরও ২০ লাখ টাকা দেওয়ার নির্দেশ | প্রথম আলো সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য | আত্রাইয়ে বন্যার্তদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ | টিম পজিটিভ বাংলাদেশের পক্ষে ৫০০ ছিন্নমূল মানুষকে খাওয়ালেন রাব্বানী | দেবীগঞ্জে বাড়িতে হামলার বিচারের দাবিতে এলাকাবাসীর মিছিল | কাশ্মীর সীমান্তে পাকিস্তানের হামলায় ভারতীয় সেনা নিহত | বিতর্কিত অঞ্চল না ছাড়া পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার হুমকি আজারবাইজানের |
  • আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সেই রায়হানকে সব অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিলো মালয়েশিয়ান পুলিশ

৬:৩৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, আগস্ট ১৯, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরায় সাক্ষাৎকার দেওয়ায় মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার বাংলাদেশি তরুণ রায়হান কবিরের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনতে পারেনি দেশটির পুলিশ। ফলে দেশে ফিরতে এখন তার আর কোনো বাধা নেই।

করোনা টেস্টের ফলাফল ও বিমানের টিকিটের ফ্লাইট কনফার্ম হলেই তাকে সব অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে নিজ দেশে ফেরাতে সম্মত হয়েছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ।

আজ বুধবার রায়হান কবিরের আইনজীবী সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশী মো. রায়হান কবিরের দুই আইনজীবীকে সুমিতা শাথিন্নি ও সি সেলভরাজা জানান, মালয়েশিয়ার পুলিশ রায়হান কবিরের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ গঠন করেনি। কোভিড -১৯ এর স্ক্রিনিংয়ের ফলাফল ভালো হওয়ার পরে ফ্লাইটের টিকিট পাওয়া গেলে তাকে বাড়ি পাঠানো হবে।

মালয়শিয়ায় একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, আগামী সপ্তাহে রায়হানকে দেশে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে সেদেশের অভিবাসন বিভাগ। দেশে পাঠানোর আগে তার করোনা পরীক্ষা করা হবে এবং টিকিট প্রাপ্তি সাপেক্ষে দ্রুত তাকে দেশে পাঠানো হবে।

করোনা মহামারি চলাকালে অভিবাসীদের প্রতি মালয়েশিয়া সরকারের আচরণ নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলায় গত ২৪ জুলাই রায়হান কবিরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। ১৪ দিন জিজ্ঞাসাবাদের পর ৬ আগস্ট পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করে। পুলিশ ১৪ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ১৩ দিন মঞ্জুর করেন। আজ রায়হানের রিমান্ড শেষ হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই আল-জাজিরায় ‘লকডআপ ইন মালয়েশিয়ান লকডাউন-১০১ ইস্ট’ শীর্ষক এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে মালয়েশিয়ায় থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের প্রতি লকডাউন চলাকালে দেশটির সরকারের নিপীড়নমূলক আচরণের বিষয়টি উঠে আসে। সেখানে দেখানো হয়েছে, কর্মহীন ও খাবারের সংকটে থাকা অভিবাসী শ্রমিকদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করে তাদের ঘর থেকে টেনে-হিঁচড়ে ডিটেনশন ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

আল-জাজিরার ওই প্রামাণ্য প্রতিবেদনে মহামারি চলাকালে অভিবাসীদের আটক ও জেলে পাঠানোর মাধ্যমে মালয়েশিয়া সরকার বৈষম্যমূলক আচরণ করছে বলে বক্তব্য দেন রায়হান কবির। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে মালয়েশিয়ার পুলিশ তার বিরুদ্ধে সমন জারি করে। ২৪ জুলাই তাকে গ্রেফতার করা হয়।