সাকিবকন্যাকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য, জড়িতদের খুঁজছে পুলিশ

১০:৩২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ২১, ২০২০ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা সাকিব আল হাসানের মেয়ের ছবিতে করা কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারীদের খুঁজছে পুলিশ। এখন আইডি শনাক্তের কাজ চলছে। শনাক্তের কাজ শেষ হলেই নোংরা মন্তব্যকারীদের ধরতে মাঠে নামবে পুলিশ।

আজ শুক্রবার (২১ আগস্ট) রাতে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের সহকারী উপ-কমিশনার (এডিসি) মো. নাজমুল ইসলাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের গর্ব সাকিব আল হাসানের পরিবারের শিশু সদস্যকে নিয়ে কিছু বিকৃত মানসিকতার মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রতি কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করছেন, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। ইতোমধ্যে এমন মন্তব্যকারীদের শনাক্ত করতে আমরা কাজ করছি। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিষ্টাচার বজায় রাখার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানিয়ে নাজমুল ইসলাম বলেন, মিথ্যা তথ্য প্রচার, সম্মানহানির চেষ্টা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিষোদগার বা প্রোপাগান্ডা ছড়ানো অপরাধ। এ ব্যাপারে আমাদের নজরদারি রয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের মেয়ের একটি ছবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে। সূর্যমুখীর খেতে তোলা সাকিবের ছোট্ট মেয়ের একটি ছবিতে কিছু বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষ বাজে মন্তব্য করেছে। এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে দেশের সকল শ্রেণীর সচেতন মানুষ এই ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন।

তাদের মতে, এই বিকৃত মানসিকতার ব্যক্তিদের জন্য দেশের নারী-শিশুদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে। এরাই ইভ-টিজিং করে, যৌন হয়রানি, ধর্ষণের মত গুরুতর অপরাধ ঘটায়। এখনই এদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ না নিলে ভবিষ্যতে আরও বড় অপরাধ ঘটাবে বলে মনে করছেন প্রতিবাদকারীরা।

এসব বাজে মন্তব্যের সাকিব এবং তার স্ত্রী শিশির অবশ্য ফেসবুক থেকে ছবিটি সরিয়ে নিয়েছেন। তবে বিষয়টি ঢাকা মহানগর পুলিশের সাইবার সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগের নজরে এসেছে।

যদিও সাকিব আল হাসান এ ঘটনায় পুলিশকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেননি। বর্তমানে তিনি সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। উক্ত ঘটনায় স্বপ্রণোদিত হয়েই কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকারীদের ধরতে কাজ করছে পুলিশ।