স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ভাড়া বাসায় উঠার ৫ দিন পর মিলল তরুণীর লাশ

৬:০৮ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ২২, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- টাঙ্গাইল পৌর এলাকার সাহা পাড়ায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মাত্র পাঁচ দিন আগে ভাড়া বাসায় উঠেন শাবনুর আক্তার খাদিজা (২০) ও আব্দুল খালেক (২৮)।

শুক্রবার ( ২১ আগষ্ট ) রাতে সেই বাসা থেকে লাশ উদ্ধার করা হয় খাদিজার। পুলিশের ধারণা, আব্দুল খালেকই শ্বাসরোধ করে খাদিজা নামের ওই তরুণীকে হত্যার পর বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে পালিয়ে যান।

খাদিজা দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইল ইউনিয়নের চিনাখোলা গ্রামের জাকির হোসেনের মেয়ে এবং আব্দুল খালেক টাঙ্গাইল পৌর এলাকার পশ্চিম আকুরটাকুর পাড়ার আবু সাঈদের ছেলে। তিনি পেশায় গাড়িচালক এবং এটি তার দ্বিতীয় বিয়ে বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন বলেন, আব্দুল খালেক এবং খাদিজা আসলেই স্বামী-স্ত্রী কিনা জানি না। আমরা তাদের বিয়ের কোনো ডকুমেন্ট পাইনি। তারা প্রেমিক-প্রেমিকাও হতে পারে। তবে পাঁচ দিন আগে তারা নিজেদের স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়েই ওই ভাড়া বাসায় উঠেন। শুক্রবার দুপুরের দিকে খালেক বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে একা বের হয়ে যান।

সারাদিন পরেও খালেক ফিরে না আসায় এবং ঘর থেকে খাদিজার কোনো সাড়াশব্দ না পাওয়ায় অন্য ভাড়াটিয়াদের মনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। পরে তারা স্থানীয় কাউন্সিলর ও পুলিশকে ঘটনাটি জানান। পরে কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে রাত ৯টার দিকে ঘরের বিছানা থেকে খাদিজার লাশ উদ্ধার করা হয়।

ধারণা করা হচ্ছে খালেকই শ্বাসরোধ করে খাদিজাকে হত্যার পর পালিয়ে যান। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।