সংবাদ শিরোনাম
নালিতাবাড়ীতে পারিবারিক হতাশায় গৃহবধূর আত্মহত্যা | সৃজিত-মিথিলাকে উপহার পাঠালেন মমতা | দুই অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেলের পদত্যাগপত্র গ্রহণ | সম্রাটের বিরুদ্ধে দুটি মামলা আমলে নিয়েছেন আদালত | শরীয়তপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ শ্র‌মিকের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত শুরু, দায় নি‌চ্ছে না কেউ | সুপার এডিটেড ক্লিপ দিয়ে আমার নামে মিথ্যা মামলা: এমপি নিক্সন | সাপাহারে হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় আটক ১ | বেতনে সংসার চলে না, পদত্যাগ করতে চান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন! | সম্রাটের মুক্তি চেয়ে আদালতের বাইরে হাজার হাজার নেতা-কর্মীর স্লোগান | কোয়ারেন্টিনে ব্যর্থতার কারণে আক্রান্ত বাড়ছে: ডব্লিউএইচও |
  • আজ ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বৃদ্ধের ৯ নম্বর বিয়ে ঠেকাতে প্রথম স্ত্রীর তোড়জোড়!

১২:৩১ অপরাহ্ণ | সোমবার, আগস্ট ২৪, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- লালমনিরহাটের পাটগ্রামে স্বামীর বিরুদ্ধে বহুবিয়ের অভিযোগ করেছেন প্রথম স্ত্রী রহিমা বেগম। অভিযুক্ত হাবিবুর রহমান ওরফে হবি (৭০) বুড়িমারী ইউনিয়ননের সাবেক ইউপি সদস্য। তিনি এখন পর্যন্ত আটটি বিয়ে করেছেন সম্প্রতি গোপনে নবম বিয়ে করতে তোড়জোড় করছেন বলে স্ত্রীর অভিযোগ। খবর- ইউএনবির

সংশ্লিষ্টরা জানায়, আটজন স্ত্রীর মধ্যে জমি-জমা বিক্রি করে ইতোমধ্যে তিনজনকে ডিভোর্স দিয়েছেন তিনি। একজনের মৃত্যু হয়েছে। চারজন স্ত্রী চার বসতবাড়িতে সন্তানদের নিয়ে রয়েছেন। এরই মধ্যে হাবিবুর রহমান হবি এক নারীর সাথে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তুলে বিয়ে করতে উঠে পড়েছে। এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হওয়ায় বাধ্য হয়ে বিয়ে রুখতে পাটগ্রাম থানায় ও লালমনিরহাট পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন প্রথম স্ত্রী।

রহিমা বেগম বলেন, ‘প্রায় ৪০ বছর আগে আমাকে বিয়ে করার সময়ের মধ্যে আমার মতের বিরুদ্ধে একের পর এক সাতটি বিয়ে করেন। তিনি একের পর এক নারীকে ভাগিয়ে এনে অন্যের সংসার নষ্ট করে মজা পান। বর্তমানে আমার ছেলে একজন বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য। মেয়েদের বিয়ে হয়েছে নাতী-নাতনি রয়েছে। এ বয়োবৃদ্ধ অবস্থায় অন্যের স্ত্রীর সাথে আমার স্বামীর পরকীয়া সম্পর্ক কিভাবে মেনে নেই। তার জন্যে সমাজে মুখ দেখাতে পারছি না।’

হাবিবুর রহমানের ছেলে ও বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের ৭নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমার বাবা বিয়ে পাগল, তিনি আমার বান্ধবীকে পর্যন্ত বিয়ে করেছে। তিনি বুড়ো বয়সেও বিভিন্ন অপকর্ম করে যাচ্ছেন। তার কারণে আমাদের মেয়ে, ভাজতি ও ভাগ্নিদের বিয়ের প্রস্তাব আসলে মানুষ খারাপ মন্তব্য করে।’

বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাইদ নেওয়াজ নিশাত বলেন, ‘হাবিবুর রহমান হবি একজন নারী পিপাসু ব্যক্তি। শেষ বয়সেও তিনি একের পর খারাপ অপকর্ম করছে। ওনার বর্তমানে চারটি স্ত্রী থাকার পরেও কি ধরণের মানসিকতা হলে তিনি অন্যের স্ত্রীর সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত হন। তাকে বিভিন্নভাবে বোঝানো হলেও তিনি কোনো কথা শুনছেন না, মানছেনও না।’

এ বিষয়ে হাবিবুর রহমান হবি বলেন, ‘আমি নবম বিয়ে অনেক আগেই করেছি। ছেলেরাই আমার সম্পদ দখল করতে আমার প্রতি অন্যায়-অত্যাচার করছে। আমি আদালতে মামলা করেছি।’

এ ব্যাপারে পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার জানান, অভিযোগ পেয়েছি। এটি বহু বিবাহের মামলা আদালতে করতে হবে।