সংবাদ শিরোনাম
৩ কাশ্মীরিকে বেআইনিভাবে হত্যার কথা স্বীকার করলো ভারতীয় সেনাবাহিনী | গোপালগঞ্জে বাস চাপায় ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনের মৃত্যু | সীমান্তে হত্যা বন্ধে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেওয়া হবে: বিএসএফ মহাপরিচালক | মসজিদে বিস্ফোরণে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু | বুক ফাটা আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে হাটহাজারীর বাতাস | টাঙ্গাইলে এক উপজেলার ইউপি সদস্য, অন্য উপজেলায় পৌর যুবদলের আহবায়ক | ঠাকুরগাঁও সীমান্তে বিএসএফের ধাওয়া খেয়ে নদীতে লাফ, বাংলাদেশির মৃত্যু | পঞ্চগড়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা | ইন্টারনেটে ‘গোপন ছবি’ প্রকাশের হুমকি দিয়ে নারীদের ব্ল্যাকমেইল, যুবক গ্রেফতার | এক নজরে আল্লামা শফীর জীবনী |
  • আজ ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাকৃবিতে ‘হাল্ট প্রাইজের’ তিন দিনব্যাপি ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন

১০:০৮ অপরাহ্ণ | সোমবার, আগস্ট ২৪, ২০২০ শিক্ষাঙ্গন
bau

হাবিবুর রনি, বাকৃবি প্রতিনিধিঃ বৈশ্বিক উন্নয়নের উদ্দেশ্যে আয়োজিত আন্তর্জাতিক ব্যবসায় উদ্যোগ প্রতিযোগিতা ‘হাল্ট প্রাইজ’র ক্যাম্পাস পর্ব টানা দ্বিতীয়বারের মত বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) অনুষ্ঠিত হবে সেপ্টেম্বরে।

হাল্ট প্রাইজের আয়োজক হিসেবে বাকৃবি শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত কমিটির সদস্যদের দক্ষ করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে তিন দিনব্যাপি ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণ কর্মশালা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। তিন দিনব্যাপি এ ভার্চুয়াল কর্মশালাটির বৃহস্পতিবার (২১ আগস্ট) সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়।

জানা যায়, ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি ৩টি সেশনে অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম সেশনে প্রতিযোগিতার সামগ্রিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন সাবেক ক্যাম্পাস ডিরেক্টর সাদিয়া হক তন্নী। এ সেশনে সদস্যদের তাদের কার্যক্রম সম্পর্কে একটি বিস্তৃত ধারণা দেওয়া হয়।

দ্বিতীয় সেশনটি আলোচনা করেন সাবেক প্রধান সমন্বয়ক স্বপ্নীল আহমেদ জাহিন। তিনি সদস্যদের মাঝে ই-মেইল রাইটিং, সোশ্যাল মিডিয়া ব্র্যান্ডিং, প্রমোশন, বাজেট ম্যানেজমেন্ট, ডিজাইন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। সর্বশেষ সেশনে আলোচনা করেন টিফিনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা শারমিন ইসলাম ইভা। তিনি সদস্যদের মাঝে প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পর্ব, গ্রুমিং ওয়ার্কশপ ও ইভেন্ট তৈরী নিয়ে আলোচনা করেন।

‘হাল্ট প্রাইজ’কে বলা হয় বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যবসায় উদ্যোগ প্রতিযোগিতা। যৌথভাবে যার আয়োজক জাতিসংঘ ও বিল ক্লিনটন ফাউন্ডেশন। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম হাফিংটন পোস্ট এই প্রতিযোগিতার নাম দিয়েছে ‘শিক্ষার্থীদের নোবেল পুরস্কার’।

প্রতিবছর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের আহ্বানে বহু শিক্ষার্থী একটি নির্দিষ্ট সমস্যার সমাধান করতে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই প্রতিযোগিতার সুবাদে। সমস্যার সমাধান ও সেই সমাধান থেকে ব্যবসার সুযোগ তৈরি করার জন্য পুরস্কার হিসেবে বিজয়ী দলকে দেওয়া হয় ১ মিলিয়ন ইউএস ডলার (সাড়ে ৮ কোটি টাকা)।