সিলেটে চা-বাগানে গৃহবধুকে গণধর্ষণ ও এসিড নিক্ষেপ, মামলার আসামিরা অধরা

১০:৪২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, আগস্ট ২৫, ২০২০ সিলেট
dhors

আবুল হোসেন, সিলেট: সিলেটের এয়ারপোর্ট থানাধীন কালাগুল ৫ নং চা-বাগানের ভিতরে টিলার উপর এক গৃহবধু (৩৬)কে হাত-পা বেঁধে গণধর্ষণের পর তার শরীরে এসিড নিক্ষেপ করেন ধর্ষকরা। গত ১৭ আগষ্ট সোমবার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধু সাহেবের বাজার হইতে বাড়ি ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় এয়ারপোর্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। যার মামলা (নং-১১/ তারিখ -১৯/০৮/২০২০ ইং)।  মামলা করে গৃহবধূ আরও বিপাকে পড়ছেন। মামলার আসামী এলাকায় প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করছে। যে কোন সময় ওই নারী ও তার পরিবারের লোকজনের উপর হামলা করতে পারে। এমনকি মামলা তোলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রধান করছে ধর্ষকরা। এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে আটক করেনি এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ। আসামীরা এখনও অধরা।

মামলায় আসামীরা হলেন- শাহপরান থানাধীন কল্লগ্রাম (মুন্সিপাড়া) গ্রামের মৃত ছৈয়দুর রহমানের ছেলে তাজ উদ্দিন (৩৬), এয়ারপোর্ট থানাধীন সাহেবের বাজার এলাকার মৃত তাহির উল্লার ছেলে সুরুজ আলী (৪০), আনফর আলীর ছেলে আলমগীর হোসেন (২৬), জমির আলীর ছেলে তপুর মিয়া (৩০)।

ধর্ষিতা গৃহবধূ বলেন, ওই ধর্ষকরা সর্বদাই আমাকে বিভিন্ন ভাবে ভয় দেখিয়ে আমার সাথে খারাপ কাজ করার চেষ্টা করে আসছে। সর্বশেষ তারা আমাকে জোরপূর্বক রাস্তা থেকে তোলে নিয়ে চা-বাগানের ভিতরে একটি টিলার উপর ধর্ষণ করে। আমি অনেক চেষ্টা করেও তাদের হাত থেকে রক্ষা পাইনি। তারা আমার হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে এবং আমার শরীরে এসিড নিক্ষেপ করে।

ওই আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের নিকট আশু হস্থক্ষেপ কামনা করছেন তিনি। তার মতো এ রকম আর কোন নারী ধর্ষণ ও এসিডের শিকার না হয়।

আসামীদের গ্রেফতার না হওয়ার বিষয়ে জানার জন্য এয়ারপোর্ট থানার ওসির মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।