• আজ ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মির্জাপুরে যুবকের মরদেহ উদ্ধার; পুলিশের ধারণা হত্যাকান্ড

৩:৫১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২৭, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১ নং মহেড়া ইউনিয়নের ভাতকুড়া বিল থেকে বুধবার (২৬ আগস্ট) রাতে এক যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

উদ্ধার হওয়া যুবক মহেড়া ইউনিয়নের আদাবাড়ি চরপাড়া গ্রামের মো. গর্জন মিয়ার ছেলে সোলাইমান (৩২)। সে পেশায় ড্রাইভার ছিলেন।

নিহতের বাবার ভাষ্য, গত রবিবার সকালে প্রাইভেটকার নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয় সোলাইমান। সারাদিন গাড়ি চালানো শেষে আর বাড়ি ফিরে না। ফোনে জানায় সে তার বন্ধু নুর ইসলামের সাথে আছে। রাত ১০টার পর থেকেই ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোনটি বন্ধ দেখায়। পরদিন সোমবার কোনো খোঁজ না মেলায় মঙ্গলবার মির্জাপুর থানায় একটি জি.ডি করেন ছেলের বাবা।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যার দিকে একই ইউনিয়নের ভাতকুড়া একটি বিলের মধ্যে মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। রাতে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের পরিবার মরদেহটি দেখে চিহ্নিত করার পর সুরতহাল শেষে বৃহস্পতিবার লাশটি মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মির্জাপুর থানার এস.আই আজীম।

তিনি জানান, এ ঘটনায় মির্জাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বাবা গর্জন মিয়া। মামলা নাম্বার-১৮ (২৭-০৮-২০২০)।

পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার শেষে তার দেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন না পাওয়া গেলেও শরীরের বিভিন্নস্থানে চামড়া ছিলে গেছে বলে লক্ষ্য করা গেছে। নিহত সোলাইমান পাশ্ববর্তী বাসাইল উপজেলার হাবলা গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরকিয়া প্রেমে লিপ্ত ছিলো বলে তথ্য পাওয়া গেছে। তবে সত্যতা যাচাইয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উক্ত তথ্যানুযায়ী ওই মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় ডেকে আনা হয়েছে। তবে, এলাকাবাসীর ধারণা পরকিয়া প্রেমের জেরেই হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে পারে।

এ বিষয়ে মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে এটি হত্যাকান্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরকিয়া প্রেমের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বাবা। ময়না তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।