ভারতে আবারো রেকর্ড সংক্রমণ

১:৪৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ২৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ind

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতে সংক্রমণের রেকর্ড ভাঙাগড়ার খেলায় মেতেছে করোনা ভাইরাস। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৭৭ হাজারের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মহামারী শুরু হওয়ার পর দেশটিতে এটিই একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক আক্রান্তের খবর।

ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৬১ হাজার ৫২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর সর্বমোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ লাখ ৮৭ হাজার ৫০০ মানুষ। ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ হার ৮.৫৭ শতাংশ। পরীক্ষা হয়েছে ৯ লাখ এক হাজার ৩৩৮ জনের। যা গত কালের থেকে ২৩ হাজার কম।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৫৭ জনের। এ নিয়ে দেশটিতে মোট ৬১ হাজার ৫২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মারা গেছে ২৩ হাজার ৪৪৪ জন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে মারা গেছেন ছয় হাজার ৯৪৮ জন। তৃতীয় কর্নাটকে মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে দিল্লিতে মারা গেছেন চার হাজার ৩৬৯ জন। এছাড়া অন্ধ্রপ্রদেশে (৩৬৩৩), উত্তরপ্রদেশে (৩২১৭), পশ্চিমবঙ্গে (৩০১৭), গুজরাটে (২৯৬২) জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, আক্রান্তের সংখ্যা যেমন প্রতিদিন বাড়ছে, তেমনই প্রচুর মানুষ সুস্থও হয়ে উঠছেন। এখনও পর্যন্ত মোট ২৫ লাখ ৮৩ হাজার ৯৪৮ রোগী করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ দেশে মোট আক্রান্তের তিন চতুর্থাংশেরও বেশি সুস্থ হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬০ হাজার ১৭৭ জন।

ভারতে এখন প্রতিদিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের চেয়েও বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে। শনাক্ত রোগীর তালিকায় বিশ্বে ওই ‍দুটি দেশ যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

এদিকে, ইউরোপজুড়ে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। গত জুনের পর যুক্তরাজ্যে সর্বোচ্চ এক হাজার ২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে যুক্তরাজ্যে করোনা শনাক্ত ৩ লাখ ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৪১ হাজারের বেশি।

করোনা শনাক্ত বাড়তে থাকায় ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ও অঞ্চলে নাগরিকদের ভ্রমণ বন্ধ করতে আহ্বান জানিয়েছে জার্মানি। ২রা সেপ্টেম্বর থেকে ফ্রান্স ও স্পেনসহ ৪৬টি দেশের ফ্লাইট নিষিদ্ধ করেছে পোল্যান্ড। ফ্রান্সে দ্বিতীয় দিনের মতো সর্বোচ্চ ছয় হাজারের বেশি করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গাম্বিয়া ২১ দিনের জরুরি অবস্থা বাড়িয়েছে দেশটিতে।

এছাড়া, ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলোতে করোনা শনাক্ত ৭০ লাখ ছাড়িয়েছে। বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে আট লাখ ৩৫ হাজারের বেশি। বিশ্বে মোট শনাক্ত ২ কোটি ৪৬ লাখ ছাড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছে এক কোটি ৭০ লাখের বেশি।