সংবাদ শিরোনাম
জামিনে এসে প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে মসজিদের ইমাম ‘উধাও’ | লিবিয়া উপকূলে নৌকা ডুবির ঘটনায় বাংলাদেশীসহ উদ্ধার-২২ | নোয়াখালীতে ছুরিকাঘাতে গৃহবধূ হত্যা | লালমনিরহাটে ট্রাকের ধাক্কায় ট্রেন ধরাশায়ী! | ‘দেশের সবগুলো নদী খনন করে বাঁধ নির্মাণ করা হবে’- পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী | শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে মাগুরায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ | “সৃষ্টিকর্তার রহমতে বাংলাদেশে ব্যাপক হারে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হয়নি” | ভারতের ভ্যাকসিন সমগ্র মানবজাতির কল্যাণে ব্যয় করা হবে: মোদি | ‘সিগারেট খেয়েছি, ড্রাগস নয়..ড্রাগস নিত সুশান্ত’- সারা আলী খান | ৫ অক্টোবর ঢাকায় আসছেন ভারতের নতুন হাইকমিশনার |
  • আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘‌‌আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের বোধদয় হয়েছে’- রিজভী

৩:৪৪ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ২৮, ২০২০ ঢাকা
rez

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বোধোদয় হয়েছে’ উল্লেখ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাদের দলের লোকদের বলেছেন, সাবধান বেশি বাড়াবাড়ি কইরেন না। কখন কী হয়ে যায় বলা যায় না।

‘এখন এই কথা বলে লাভ কী? গত ১২ বছর পাচার হয়ে গেলও বরকতের টাকা, ফরিদপুরের ছাত্রলীগের সভাপতির টাকা। আর কত শাহেদ, শামীম ও সম্রাট! আপনারা ২০০৯ সালে যখন ক্ষমতায় এসেছিলেন তখন এসব কথা বললেই নেতাকর্মীরা অনেকটা সতর্ক থাকতো।’

রিজভীর দাবি, ‘ইলিয়াস আলীর মতো একজন এমপিকে গুম করে দেওয়া হলো। কে করেছে সেটা তো আপনি, ওবায়দুল কাদের তো তা জানেন। আপনি জানেন রাজশাহীর হিরুকে কে গুম করেছে। সেইদিন কেন আপনার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও নেতাকর্মীদের বলেননি, সবাই সাবধান থাকবেন। কখন কী ঘটে যায়। এতো অন্যায়, এতো টাকা প্রচার। তাদের (আওয়ামী লীগের) তো ভয় থাকার কথা। হয়তো তিনি মুখ ফসকে বলেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইলের এক এমপি বলেছে, তোমরা নিজেরা নিজেরা গণ্ডগোল করো, বাড়িতে বাড়িতে যেয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা করতে পারো না? রাজশাহীর আরেক এমপি বলেছে, ছাত্রলীগ তোমরা নিজেরা নিজেরা মারামারি করো, ছাত্রদল-বিএনপি কর্মীদের সঙ্গে পারো না? আপনাদের সেই উসকানিতে ছাত্রলীগ বিশ্বজিতের মতো এক কিশোর শ্রমিককে হত্যা করেছে।’

বিএনপির এ মুখপাত্র আরও বলেন, সুস্থ গণতন্ত্র নেই বলে আমাদের নানাভাবে নানা কৌশলে কথাগুলো বলতে হচ্ছে। কথার মধ্যে যদি কোনো ব্যত্যয় ঘটে তবে নিস্তার নেই। ডিজিটাল আইন আছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার একটি অস্ত্র, নানা ধরনের গালাগালি একটি অস্ত্র, ডিজিটাল আইন একটি অস্ত্র। এরপর আরও বড় অস্ত্র আছে বিচারবহির্ভূত হত্যা। এগুলো সব সরকারের হাতে বিরোধী কণ্ঠকে রোধ করার জন্য, মিছিল বন্ধ করার জন্য, রাজনৈতিক তৎপরতা বন্ধ করার জন্য। সরকারের যখন যে অস্ত্র ব্যবহার করা দরকার সেই অস্ত্র তারা নির্বিঘ্নে ব্যবহার করছে।

শুক্রবার (২৮ আগস্ট) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রাজশাহী ইউনিভার্সিটি ন্যাশনালিস্ট এক্স স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (রুনেসা) উদ্যোগে ছাত্রদল মন্নুজান হল শাখার সাবেক সভাপতি দিলরুবা শওকতের রুহের মাগফিরাত কামনায় আয়োজিত দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের সভাপতি বাহাউদ্দিন বাহারের সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য রমেশ দত্ত, আমিনুল ইসলাম, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম, কৃষক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশ, এম জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।