সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিএসজিতে যোগ দিতে মেসিকে নেইমারের ফোন

৫:৫৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, আগস্ট ২৮, ২০২০ খেলা
messi-neymar-psg_1

স্পোর্টস আপডেট ডেস্কঃ স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার সঙ্গে প্রায় বিশ বছরের সম্পর্কের ইতি টানার ঘোষণা দিয়েছেন মেসি। গত মঙ্গলবার ক্লাবকে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি আর বার্সায় থাকতে চান না। তাকে যেনো ক্লাব ছাড়ার অনুমতি দিয়ে দেয়া হয়।

মেসির এমন ঘোষণার পর অনেক ক্লাবই আগ্রহ প্রকাশ করেছে তাকে দলে নেয়ার ব্যাপারে। সেই তালিকায় এগিয়ে রাখা হচ্ছে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটিকে। তবে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইও (পিএসজি) হতে পারে মেসির পরবর্তী ঠিকানা। স্প্যানিশ একটি গণমাধ্যমের দাবি, লিওনেল মেসিকে পিএসজিতে যোগ দিতে ফোনকলে অনুরোধ করেছেন তার সাবেক বার্সেলোনা সতীর্থ নেইমার।

মেসি-নেইমারের বন্ধুত্বের কথা সবারই জানা। বার্সেলোনায় চার মৌসুম খেলেছিলেন নেইমার। বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর আক্রমণভাগ তৈরি করেছিলেন দু’জন মিলে। ২০১৭ সালে রেকর্ড ট্রান্সফার ফি’তে কাতালান ক্লাব ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেন নেইমার।

তবে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে ফেরাতে বারবারই ক্লাব কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছিলেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা। অন্যদিকে নেইমারও চেয়েছিলেন ফিরতে। গেল মৌসুমে দলবদলের সময় তো বার্সায় ফিরতে ফরাসী ক্লাবটির সঙ্গে মোটামুটি বিরোধেই জড়িয়ে পড়েছিলেন নেইমার। তবে শেষপর্যন্ত তাকে কিনতে পারেনি বার্সা।

ক্লাব সভাপতি তো সরাসরিই বলেছেন, নেইমার যেভাবে দল ছেড়েছে সেটি তাদের পছন্দ হয়নি। অর্থাৎ তারাও চাননি নেইমারকে ফেরাতে। মেসির ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে নেইমারের এই ঘটনাকেও বড় প্রভাবক বলে মনে করেন ইউরোপিয়ান ফুটবল বোদ্ধারা।

এবার মেসির ক্লাব ছাড়ার ঘোষণার পর আবারো দু’জনের জুটি দেখার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এরইমধ্যে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা দুই তারকার ফোনালাপ হয়েছে বলেও জানিয়েছে স্প্যানিশ একটি গণমাধ্যম।

তাদের দাবি, মেসিকে কল করেছেন নেইমার। সেখানে নাকি ক্ষুদে জাদুকরকে পিএসজিতে যোগ দেয়ার অনুরোধ করেছেন নেইমার।

এদিকে বাজারে গুঞ্জন, ব্রাজিলিয়ান তারকাকে ম্যানচেস্টার সিটিতে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মেসি।

৬ বারের ব্যালন ডি অর জয়ীর সম্ভাব্য গন্তব্য হিসেবে ধরা হচ্ছে ম্যানসিটিকে। সেক্ষেত্রে পিএসজিতে যাওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম বলে দাবি করছে গণমাধ্যমগুলো। আর নতুন ঠিকানায়ও নেইমারকে পাশে পেতে চান মেসি, এমন দাবিও করছে তারা।