সংবাদ শিরোনাম
নার্সের কাজ করতে সক্ষম রোবট, উদ্ভাবন করলেন গবি শিক্ষার্থীরা | নুর অপরাধ করলে বিচার করুন, হয়রানি নয়: ডা. জাফরুল্লাহ | শরীয়তপুরে তৃনমূল বিএনপিকে ঐক্যবদ্ধ কর‌তে নেতাকর্মী‌দের আলোচনা সভা | সরকার নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত, তাই নিজেদের ভুল দেখে না: ডা. জাফরুল্লাহ | ইরফানের কবর আগাছায় ছেয়ে গেছে | রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট না দিলে বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর হুমকি সৌদির | সৌদির বাতিল হওয়া সব ফ্লাইট চালু হবে ১ অক্টোবর | বাংলাদেশে বিপুল পরিমাণ সমরাস্ত্র বিক্রি করতে চায় তুরস্ক | চোখ বাঁধা যুবলীগ নেতা ও পুলিশ কর্মকর্তার কথোপকথন, ভিডিও ভাইরাল | জয়পুরহাটে এক মাদক ব্যবসায়ীসহ ৯ মাদকসেবী আটক |
  • আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়ার স্থায়ী মুক্তি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে তার পরিবার

১০:২৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, আগস্ট ২৯, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
khaleda-zia

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার স্থায়ী মুক্তি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে তার পরিবার। গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি জানান, মুক্তির বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য চিঠি পাঠানো হয়েছে আইন মন্ত্রণালয়ে।

আবেদনে উল্লেখ করা হয়, করোনা পরিস্থিতির কারণে তার শারীরিক অসুস্থতার কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা বা চিকিৎসা করা সম্ভব হয়নি। তাই আবারো সাজা মওকুফের আবেদন। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, প্রথমবারের মতই বেগম জিয়ার ছোটভাই এবারও আবেদন করেছেন মুক্তির।

বেগম জিয়ার আইনজীবী জানান, সরকার চাইলে সাজা মওকুফও করতে পারেন। তবে দুদকের আইনজীবী বলছেন, আদালতের আদেশ ছাড়া সরকারের কোন সিদ্ধান্ত দেয়ার এখতিয়ার নেই।

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বেগম জিয়ার সাজা স্থগিতাদেশের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই এবার স্থায়ী মুক্তির আবেদন করেছে তার পরিবার। শারীরিক অসুস্থতার কথা উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করেন বেগম জিয়ার ছোটভাই শামিম ইস্কান্দার।

উল্লেখ্য দুই বছরের বেশি সময় কারাভোগের পর গত ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে মুক্তি পান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৪ মার্চ খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে শর্ত সাপেক্ষে তাকে মুক্তি দেয় সরকার। যার মেয়াদ শেষ হবে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বরে। শর্ত ছিল- খালেদা জিয়া ঢাকায় নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন এবং এই সময়ে দেশের বাইরে যেতে পারবেন না।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার কথা বলে আসছেন। ঈদুল আজহার দিন তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, বিদেশে না যাওয়ার জন্য খালেদা জিয়াকে শর্ত দেয়া হয়েছে। কিন্তু তার বিদেশে চিকিৎসাই এখন বেশি প্রয়োজন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ পাবেন, সেই সুযোগের অপেক্ষায় আছি। তবে সূত্র জানায়, খালেদা জিয়ার ভাইয়ের আবেদনে বিদেশে নেয়া সংক্রান্ত কোনো বিষয় উল্লেখ করা হয়নি। তবে মুক্তির ক্ষেত্রে শর্ত শিথিলের কথা বলা আছে।

খালেদা জিয়া মুক্তির পর থেকে গুলশানে তার ভাড়া বাসা ‘ফিরোজায়’ আছেন। তিনি নিকটাত্মীয় ছাড়া কোনো নেতাকর্মীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন না। শুধু ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা- এ দু’দিন রাতে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা তার সঙ্গে দেখা করেন। এছাড়া ব্যক্তিগতভাবে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম একাধিবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।