সংবাদ শিরোনাম

প্রিয় বন্ধু ম্যারাডোনাকে নিয়ে পেলের আবেগঘন স্ট্যাটাস | একাত্তরের ফতোয়াবাজদের ‘প্রেতাত্মারাই’ ভাস্কর্যের বিরোধিতা করছে: তথ্যমন্ত্রী | ময়মনসিংহে ‘আল্লাহর দলের’ ৪ সদস্য আটক | মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেরা হলো না প্রথম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রীর | দেশের প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের নির্দেশ সেনাপ্রধানের | জামালপুরে কারাগারে কয়েদির মৃত্যু | 'পাকিস্তানের ১৯৭১ সালের নৃশংসতা অমার্জনীয়'- প্রধানমন্ত্রী | জাতিসংঘে বাংলাদেশের ‘শান্তির সংস্কৃতি’ রেজুলেশন গৃহীত | ধর্ষণ ও সহযোগিতার অভিযোগে নুরের তিন সহযোগী রিমান্ডে | 'কোরআন এবং হাদিসের আলোকে মূর্তি বা ভাস্কর্য নির্মাণ হারাম' |

  • আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হঠাৎ মোদির ভিডিওতে ডিসলাইকের বন্যা!

⏱ ১:০৭ অপরাহ্ন | সোমবার, আগস্ট ৩১, ২০২০ 📂 আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- মোদি সরকার গঠনের পর একদল স্পেশাল প্রযুক্তিবিদের সহায়তায় ভার্চুয়াল মিডিয়ায় নিজের ইমেজ ধরে রাখার জন্য টুইটার নিয়মিত হওয়া, নির্বাচনী ক্যাম্পেইন, ভিডিও আপলোড সবই করে দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন। কিন্তু এ জনপ্রিয়তার তার দিন দিন কমছে। ভারতীয় প্রযুক্তি গবেষণা সংস্থা মার্কস এ তথ্য গতকাল সোমবার জানিয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন জানায়, ইউটিউবে আপলোড করা নরেন্দ্র মোদির এক ভিডিওতে লাইকের চেয়ে ডিসলাইক পড়েছে প্রায় ৯ গুণ।

এক সময় ভারতের কোটি কোটি মানুষ শুনতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মনের কথা। রেডিও বা দূরদর্শন তো বটেই, সামাজিক মাধ্যমেও তুমুল জনপ্রিয় ছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রিয় অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’।

সেই জনপ্রিয়তা কমার ইঙ্গিত অনেক দিন ধরেই মিলছিল। সামাজিক মাধ্যমে ‘মন কি বাত’ নিয়ে আলোচনাও কমছিল নিয়মিত। কিন্তু এবার যেটা হলো সেটা কল্পনার অতীত।

মোদির সাম্প্রতিকতম ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানের ভিডিওতে লাইকের থেকে ডিসলাইক পড়ল অনেক বেশি। অর্থাৎ যত মানুষ এটিকে পছন্দ করেছেন, তার চেয়ে অনেক বেশি মানুষ অপছন্দ করেছেন। তাহলে কি এটা মোদির জনপ্রিয়তা কমার ইঙ্গিত?

রবিবার মোদির ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ পরই ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড করা হয়। কিন্তু আপলোড হওয়ার পর থেকেই তাতে ডিসলাইকের বন্যা বইতে শুরু করে।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভিডিওটিতে আড়াই লাখের বেশি মানুষ ডিসলাইক করেছেন। আর লাইক করেছেন মোটে ২৯ হাজার মানুষ। অর্থাৎ অপছন্দকারীদের সংখ্যাটা পছন্দকারীদের প্রায় সাড়ে ৯ গুণ।

কিন্তু কেন এই ডিসলাইকের বন্যা? তাহলে কি মোদির জনপ্রিয়তা কমে গেল? রাজনৈতিক মহল বলছে, এর সঙ্গে মোদির সার্বিক জনপ্রিয়তার কোনো সম্পর্ক নেই।

আসলে করোনা আবহে এনইইটি, জিইই এবং কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা আয়োজনের সরকারি সিদ্ধান্ত ‘না পসন্দ’ শিক্ষার্থীদের। তাই প্রতিবাদের জন্য তারা ইউটিউবকে বেছে নিয়েছেন।

আসলে এনইইটি, জিইই এবং কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নিয়েই ভারতের রাজনীতি এখন উত্তাল। করোনা আবহে এত বড় পরীক্ষা নেওয়া মানে পরীক্ষার্থীদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া।

এই অভিযোগ তুলে বিরোধী শিবির রীতিমতো সরকার পক্ষকে কাঠগড়ায় তুলছে। কিন্তু এসবের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ে রবিবারের ‘মন কি বাতে’ একটি শব্দও খরচ করেননি প্রধানমন্ত্রী। আর তাতেই খেপেছেন শিক্ষার্থীরা। তাই ‘মন কি বাতে বাড়ছে’ ডিসলাইকের সংখ্যা।