সংবাদ শিরোনাম
নায়িকারা মাদকাসক্ত, নায়কেরা কি ধোয়া তুলসি পাতা প্রশ্ন মিমির | কুড়িগ্রামে আবারো বন্যা, নিন্মাঞ্চল প্লাবিত, ধরলার পানি বিপদসীমার উপরে | তিস্তার মেগা প্রকল্প নিয়ে চীনের সাথে আলোচনা চলছে: জাহিদ ফারুক | শার্লি হেবদোর অফিসের কাছে ছুরি হামলায় আহত ৪ | করোনামুক্ত হওয়ার পর মারা গেলেন সংগীতশিল্পী বালাসুব্রহ্মণ্যম | প্যান্টের পকেটে মোবাইলফোন রাখলে হারাতে পারেন যৌন ক্ষমতা: গবেষণা | সুয়ারেসকে বের করে দেওয়ায় বার্সার ওপর ক্ষুব্ধ মেসি | পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে বিএনপি’র দহরম-মহরম পুরনো: তথ্যমন্ত্রী | জিনজিয়ানের ১৬ হাজার মসজিদ গুঁড়িয়ে দিল চীন | কক্সবাজারে ছাত্রলীগ নেতার রগ কেটে দিলো শিবির নেতা |
  • আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘আওয়ামী লীগ ‘পুতুল সরকার’ হিসেবে কাজ করছে’- মির্জা ফখরুল

১০:০৫ অপরাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ২, ২০২০ জাতীয়
fokk

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার আধিপাত্যবাদের পুতুল সরকারে পরিণত হয়েছে। তারা শুধুমাত্র তাদেরই এজেন্ডা এখানে বাস্তবায়িত করছে। তাদের সরিয়ে সত্যিকার অর্থে জনগণের সরকার, জনগণের প্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠা করা, এটাই হবে আমাদের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য। এই লক্ষ্যে আসুন আমরা সবাই একসাথে কাজ করি।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বেগম জিয়ার কারাবরণ দিবসে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি। বেগম জিয়ার স্থায়ী মুক্তিই এখন বিএনপির প্রধান লক্ষ বলেও জানান মির্জা ফখরুল।

বিএনপির বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রের কথা তুলে ধরে ফখরুল বলেন, বিএনপির বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রোপাগান্ডা শুরু হলো। সেই ধারাবাহিকতায় আমরা লক্ষ্য করলাম যে, বেশ কয়েকটি দেশের ডিপ্লোম্যাটিকরা টুইজডে ক্লাব বলে একটি ক্লাব তৈরি করল। সেই ক্লাবে আবার একটা আন্দোলন শুরু হলো মিলিতভাবে যে যোগ্য প্রার্থীর.. । সবই একই সূত্রে গাঁথা ছিল।

তিনি বলেন, বিএনপি যেহেতু দেশের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করে, স্বাধীন সার্বভৌমত্ব স্বতন্ত্র অবস্থানে আছে। এ সরকার যদি থাকে এদের প্রতিনিধিরা যদি সংসদে আসে তাহলে তাদের যে লক্ষ্য সেই লক্ষ্য এখানে বাস্তবায়িত করা সম্ভব হবে না। এর ফলে আমরা দেখেছি, তারা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বিভিন্ন নাটক তৈরি করেছে, বিভিন্নভাবে আমাদের এখানে ১/১১’র সরকার তৈরি হয়েছে, তার পরে দেখি যে, দুই বছর সম্পূর্ণ অসাংবিধানিকভাবে সরকার নিয়ে গেছে এবং তারপরে একটা নির্বাচন অনুষ্ঠিত করেছে যে নির্বাচনটা ছিল ষড়যন্ত্রমূলক। কিন্তু দেশনেত্রী খালেদা জিয়া একবারের জন্যও মাথা নত করেননি।

১/১১ সরকারের আমলে ২০০৭ সালে ২ সেপ্টেম্বর সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর থেকে এ দিবসটিকে বিএনপি ‘কারাবন্দি দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছে। দিবসটি উপলক্ষে বিএনপির উদ্যোগে এ ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা হয়। সভায় লন্ডন থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যুক্ত ছিলেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বক্তব্য রাখেন।