‘ইউএনওর ওপর হামলাকারীরা রাজনৈতিক পরিচয়ে ছাড় পাবে না’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৪:৩০ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
sora

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলাকারীরা দলীয় বা রাজনৈতিক পরিচয়ের কারণে শাস্তি থেকে রেহাই পাবে না।

শুক্রবার (০৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘হামলাকারীরা যে দলের কিংবা যে মতেরই হোক, তারা ঘৃণ্য অপরাধী। বর্বরোচিত এ হামলার দায় থেকে অপরাধীরা ছাড় পাবে না। সরকার অপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর।’

ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার ঘটনা সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন বেশ কয়েকজন অপরাধীকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তদন্ত ও অনুসন্ধান শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘আপনারা আগেও দেখেছেন, আমাদের সরকার অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই চিহ্নিত করে আসছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাও এটিই। অপরাধ করে আমাদের দলের সংসদ সদস্য ও নেতা রেহাই পায়নি। তিনি যে পর্যায়ের নেতাই হোন, অপরাধ করলে বিন্দুমাত্র ছাড় পাচ্ছেন না। ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার সাথে যে নেতা বা ব্যক্তিই জড়িত বলে প্রমাণিত হবেন, তিনিও ছাড় পাবেন না। দলীয় পরিচয় তাকে শাস্তি থেকে রেহাই দেবে না।’

উল্লেখ্য বুধবার (০২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদার সরকারি বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে বাসায় ঢুকে ওয়াহিদা ও তার বাবার ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। ইউএনওর মাথায় গুরুতর আঘাত এবং তার বাবাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয়।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ইউএনওকে প্রথমে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (রমেক) নিয়ে ভর্তি করা হয়। এরপর তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। তিনি বর্তমানে রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

অস্ত্রোপাচারের ১১ ঘণ্টা পর ইউএনও ওয়াহিদা খানমের জ্ঞান ফিরেছে। জ্ঞান ফেরার পর কথা বলেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।