সংবাদ শিরোনাম

ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয়, ত্যাগের মহিমায় জীবন সাজান: কাদেরআল্লাহ’র সঙ্গে শিরক, নিষিদ্ধ হলো তুরস্কের বিখ্যাত ‘ইভিল আই’ তাবিজক্ষমা চাইলেন এমপি একরামুলএবার এসএসসি-এইচএসসিতে অটোপাস সম্ভব নয়: শিক্ষামন্ত্রীবাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দনসৈয়দপুর-রংপুর মহাসড়ক থেকে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধারনন্দীগ্রামে আন্তজেলা ডাকাত দলের সদস্য গ্রেফতারশাহজাদপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তাদের অর্থায়নে পাকা ঘর পাচ্ছে প্রতিবন্ধী দম্পতিবাংলাদেশে পরীক্ষা চালানোর জন্য ২০ লাখ টিকা দিয়েছে ভারত: রিজভীফরিদপুরের ভাঙ্গায় ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ: ২ স্কুলছাত্র নিহত

  • আজ ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দেশবাসী আমাদের সঙ্গে রাস্তায় নামতে চায়: জাফরুল্লাহ চৌধুরী

◷ ৫:২৩ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২০ জাতীয়
jaforuallah

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাষ্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, আজকে দেশবাসী চায় আমরা রাস্তায় দাঁড়াই। আমরা রাস্তায় দাঁড়াতে দেখলে তারা প্রথমদিন, দ্বিতীয় দিন না আসলেও তৃতীয় দিন ঠিকই আমাদের পাশে এসে দাঁড়াবে। তারা আসবে। এই কথাটা প্রধানমন্ত্রী জানেন, কিন্তু তিনি বিশ্বাস করেন না।

শনিবার (৫ সেপ্টম্বর) বেলা ১২ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে তৃতীয় তলায় “জাতীয় স্মরণ মঞ্চ” আয়োজিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী প্রফেসর ডা. এমাজউদ্দিন আহমেদ স্মরণে নাগরিক শোকসভায় তিনি এ কথা বলেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এমাজউদ্দিন আহমেদ পরিস্কারভাবে বিভিন্ন সময় বলেছিলেন ভারত থেকে সাবধান থাকতে হবে। উনার এই সাবধান বানীকে সরকার কিভাবে নিলেন, তাদের (ভারতের) একজন রাষ্ট্রপতির মৃত্যুতে তারা একদিনের রাষ্ট্রীয় শোকসভা পালন করলেন। অথচ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী শেখ মুজিব রহমানের জন্ম কিংবা মৃত্যু দিবস ভারতে কখনো রাষ্ট্রীয় ভাবে পালিত হয়নি। আর কতটা পা চাটবেন। আমি বারে বারে বলেছি দেশের বিভিন্ন সমস্যা ভারতের সৃষ্টি। চীনারা সোনাদিয়ে দ্বীপের সমুদ্র বন্দর করবে বলেছিলো কিন্তু ভারতীয়রা অসন্তুষ্ট হয়েছে তাই এটা আর হবেনা। চীন যারা আমাদের পক্ষে ছিলেন তারা আমাদের ছেড়ে অন্যদিকে গেলেন। এই জিনিসটা বিভিন্ন সময় এমাজউদ্দিন সাহেব বলেছেন।

তিনি আরো বলেন, আমি মানববন্ধনে বলেছি এই প্রনব বাবু আমাদের কি কি উপকার করেছে তার একটা হিসাব করি। ফেলানি যখন মারা যায় তার বিচারটা পর্যন্ত তিনি করেন নাই। তিনি কি বলেছিলেন, ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশনের রাস্তাটা কে ফেলানির নামে নাম করা হোক। রাষ্ট্রপতি হিসাবে প্রণব বাবু কোনদিন এইসবের প্রতিবাদ করেন নি।

সরকারের উদ্দেশ্য জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, কোন না কোন সময় তো পরিবর্তন হবে, তখন আপনাদের ভূল শাসনের দুশাসনের বিচার হলে আপনাদের কত বছরের সাজা হবে।

বিএনপির উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তরুণদের দিয়ে বিএনপির কাউন্সিল মিটিং টা করান। তারা মার খেয়েছে, তারা রাস্তায় দাঁড়াবে। তাদের স্ট্যান্ডিং কমিটিতে নিতে হবে।।এখন খালেদা জিয়ার অবশ্যই কথা বলতে হবে। আজকে হাইকোর্টে ঘেরাও দিতে হবে। অন্যদের বেইল হয়। সবার জামিন হয়, ফাঁসির আসামীর জামিন হয় খালেদা জিয়ার বেইল হয়না।

তিনি আরো বলেন, এমাজ উদ্দিনের সাহেব তার জ্ঞানের আলোয় সবাইকে আলোকিত করতে চেয়েছেন, কিন্তু দূর্ভাগ্যবসত আলোটা আমাদের রাজনীতিবিদদের অন্তরে প্রবেশ করে নাই। ভারতীয়দের সাহায্য নিয়ে বিএনপি কখনোই ক্ষমতায় আসতে পারবে না। বিএনপি আসবে তার জনগণের সমর্থন নিয়ে।

জাতীয় স্মরণ মঞ্চের সভাপতি প্রকৌশলী আ হ ম মনিরুজ্জামান দেওয়ান মানিকের সভাপতিত্বে ও উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিশিষ্ট সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য কবি আবদুল হাই শিকদার, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ডাকসুর সাবেক জি এস খায়রুল কবির খোকন, ডাকসুর সাবেক এজিএস নাজিম উদ্দীন আলম, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু প্রমুখ।