‘খুবই প্রয়োজন’ ছাড়া ব্যয় না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

৬:৫৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা থাকা সত্ত্বেও আমরা বাজেট দিয়েছি। সত্যি কথা বলতে কি জানি না, ভবিষ্যত আমরা কতটুকু করতে পারব? যদি সারা বিশ্বব্যাপী মন্দা চলতেই থাকে বা খারাপ হয় তাহলে হয়তো পারব না। কিন্তু পারবো না বলে আমি পিছিয়ে যেতে রাজি নই।

সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গণভবন থেকে সশস্ত্র বাহিনী পর্ষদ ২০২০ (১ম পর্ব)’এ অংশগ্রহণের ভার্চুয়াল সভায় যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ঢাকা সেনানিবাসের সেনাদর, নৌবাহিনীর সেনা সদর এবং বিমান বাহিনীর সদর দফতরে যুক্ত হয়ে কথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, “খুবই প্রয়োজনীয়… সেটা ছাড়া অন্য ব্যয়গুলো আমরা আপাতত স্থগিত রাখব। যদি সুদিন আসে তখন আমরা করব।”

সরকার প্রধান বলেন, “যেখানে যতটুকু সহযোগিতা দেওয়া যায় আমরা সেটা করে যাচ্ছি। যার জন্য বাজেটে কিন্তু আমরা টাকা পয়সা কম দেইনি। কিন্তু ব্যয় করার সময় সকলকে একটু সীমিতভাবে ব্যয় করতে হবে এই কারণে যে, বাজেটে আমরা বরাদ্দ ধরে রেখেছি কিন্তু এই অর্থনৈতিক অবস্থায় কতটুকু অর্থ আমরা সংগ্রহ করতে পারব আর কতটুকু ব্যয় করতে পারব সেখানে আমাদের এখন থেকে হিসেব করে চলতে হবে।

“সেই অনুরোধটা আমি সকলকে করব, আমার সশস্ত্র বাহিনী-তিন বাহিনীকেও আমি বলব।… টাকার যোগানটা আমরা কতটুকু দিতে পারব সেটাও একটা বিষয়। খুবই প্রয়োজনীয় সেটা ছাড়া অন্য ব্যয়গুলো আমরা আপাতত স্থগিত রাখব। যদি সুদিন আসে তখন আমরা করব।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সব দিকে নজর রেখে আমরা আমাদের সশস্ত্র বাহিনীকে ঢেলে সাজিয়েছি এবং সেই ধরনের ব্যবস্থাও আমরা নিচ্ছি। সেই সঙ্গে বিশেষায়িত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও গড়ে তুলেছি, যাতে সবধরনের ট্রেনিং আমাদের সবাই পায়।’

‘বর্তমানে যেমন সশস্ত্র বাহিনীর অফিসারদের পদোন্নতির জন্য আধুনিক পদ্ধতি অর্থাৎ ট্রেস ট্যাবুলেটেড রেকর্ড অ্যান্ড কমপারেটিভ ইভালুয়েশনের মাধ্যমে আপনারা কারা প্রমোশন পাওয়ার উপযুক্ত সেই দক্ষতা কার কতটুকু আছে এর তুলনামূলক মূল্যায়ন করে আপনারা সিদ্ধান্ত নেন’ আরও যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘যেকোনো একজন অফিসার বা কর্মকর্তার পদোন্নতির ক্ষেত্রে অবশ্যই তাদের পেশাগত মান, তাদের যোগ্যতাসম্পন্ন এবং তাদের দক্ষতা বিবেচ্য বিষয় হবে, সেটা অগ্রাধিকার আপনারা দেবেন।’