সংবাদ শিরোনাম
মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের উপর হামলা, আটক ১ | স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রসূতি নারীকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ নার্সদের বিরুদ্ধে | স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ: ফরিদপুরে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড | এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ধর্ষণকাণ্ডে আরেক ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার | ‘নারীর দিকে আড়চোখে তাকাবে, এমন কর্মী ছাত্রলীগে নেই’- লেখক | এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ছাত্রলীগকর্মী রনির পর গ্রেফতার রবিউল | শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন আজ | কুড়িগ্রামে আবারো বন্যা, ঘর-বাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় দুর্ভোগে মানুষজন | এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে ধর্ষিতা গৃহবধূর জবানবন্দি | বড় ভাইদের ছত্রচ্ছায়ায় বেপরোয়া হয়ে উঠেন ধর্ষক রনি |
  • আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জনি হত্যা: এসআই জাহিদসহ পাঁচজনের মামলার রায় দুপুরে

১১:০৫ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- সাড়ে ছয় বছর আগে থানায় নিয়ে গাড়িচালক ইশতিয়াক হোসেন জনিকে পিটিয়ে হত্যার মামলায় পল্লবী থানার তৎকালীন পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহিদুর রহমান জাহিদসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে করা মামলার রায় আজ (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টায় ঘোষণা করা হবে।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ রায় ঘোষণা করবেন। এর আগে রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত সোমবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ মামলায় রায়ের এই দিন ঠিক করে দেন।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) তাপস কুমার পাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘এসআই জাহিদসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে করা মামলার রায় বুধবার দুপুর ২টায় ঘোষণা করা হবে। এটি হবে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনের মামলার প্রথম রায়। রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন প্রত্যাশা করছি।’

২০১৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনে জনির মৃত্যুর পর ওই বছর অগাস্ট মাসে তার ভাই ইমতিয়াজ হোসেন রকি আদালতে এই মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- পল্লবী থানার তখনকার এসআই জাহিদুর রহমান জাহিদ, এএসআই রাশেদুল ইসলাম, এএসআই কামরুজ্জামান মিন্টু, পুলিশের সোর্স সোর্স সুমন ও রাশেদ। তাদের মধ্যে এসআই জাহিদ ও সুমন কারাগারে আছেন। এএস আই রাশেদুল জামিনে রয়েছেন; বাকি দুজন জামিনে গিয়ে নিরুদ্দেশ হয়েছেন।

এ মামলার বিচারে রাষ্ট্রপক্ষে মোট ২৪ জন সাক্ষীর বক্তব্য শুনেছে আদালত। গত ৯ ফেব্রুয়ারি আসামিরা আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেওয়ার পর ১৯ ফেব্রুয়ারি যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু হয়।

বাদীপক্ষে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সাভির্সেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) আইনজীবী আবু তৈয়ব মঙ্গলবার বলেন, “করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে মাঝপথে যুক্তিতর্ক থমকে ছিল। চলতি মাসে আদালতের নিয়মিত কার্যক্রম শুরু হলে সোমবার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়।”