সংবাদ শিরোনাম
আল্লামা শফীর শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন, এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে আনা হচ্ছে ঢাকায় | ‘পাত্র চাই’ বিজ্ঞাপন দিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ | খাগড়াছড়িতে বাস ও মোটরবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ | ‘বঙ্গবন্ধু শুধু আ.লীগের না সারাদেশের ও সারাবিশ্বের অবিসংবাদিত নেতা’- খাদ্যমন্ত্রী | শ্রীপুরে পারিবারিক কলহের জেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা | ইউএনও ওয়াহিদা’কে হত্যা প্রচেষ্টা সিনেমার গল্প’কেও হার মানিয়েছে! | ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে না: রাশিয়া | আল্লামা শাহ আহমদ শফী আইসিইউতে | দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যুর সর্বশেষ তথ্য | ‘২০২১ সাল আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে’- পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী |
  • আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ছাত্রীর সঙ্গে অশ্লীল ফোনালাপ ফাঁস: রেজিস্ট্রারের বরখাস্ত চেয়ে ৩ দিনের আল্টিমেটাম

৭:১১ অপরাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০ শিক্ষাঙ্গন

নিজস্ব প্রতিবেদক, গবি- ছাত্রীর সাথে অবৈধ সম্পর্কের ফোনালাপ ফাঁস হওয়াসহ পূর্বের নানা ঘটনার জের ধরে সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেনের বরখাস্তের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডকে দেয়া এক লিখিত বিবৃতিতে রেজিস্ট্রারকে বরখাস্তের জন্য ৩ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন তারা।

বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ছাত্র সংসদের সহসভাপতি (ভিপি) মো. জুয়েল রানা ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মো. নজরুল রলিফ স্বাক্ষরিত যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, চলমান সংকটকালীন অবস্থায় রেজিস্ট্রারের ঘটনা নিয়ে গত ২ দিন যাবত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আমরা উনার বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন যাবত ছাত্রীদের নানাভাবে যৌন হয়রানির কথা শুনে আসছি। সর্বশেষ এক ছাত্রীকে নানাভাবে যৌন হয়রানির প্রমাণ পেয়েছি।

সার্বিক ঘটনায় নিজেদের দাবি তুলে ধরে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি তথা অভিভাবক হিসেবে রেজিস্ট্রারের অপসারণ এবং আগামী ৩ দিনের মাঝে তার বরখাস্তের দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় যেকোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য প্রশাসন দায়ী থাকবে।

জানা যায়, গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেনের সাথে এক ছাত্রীর অশ্লীল কথাবার্তা সম্বলিত ২৬ মিনিট ৩২ সেকেন্ডের একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়। এ ঘটনায় গত দুদিন যাবত ক্যাম্পাসে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালেও রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রীর যৌন নিপীড়ন সংক্রান্ত একটি অভিযোগ ইউজিসিতে দাখিল করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তখন তদন্ত কমিটি গঠন করে অভিযোগের বিষয়ে রেজিস্ট্রারের কাছে জবাব চাওয়া হয়। কিন্তু তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি বলে ইউজিসি সূত্রে জানা যায়। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক নারী শিক্ষক রেজিস্ট্রার কর্তৃক নানাভাবে হয়রানির শিকার হয়েছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।