সংবাদ শিরোনাম
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের অবনতি, মোদিকে দুষলেন রাহুল | ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বললেন বাহরাইনের যুবরাজ | ভারতসহ তিন দেশের নাগরিকদের ওপর সৌদির ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা | আন্তর্জাতিক সংস্থার কাছে ‘হিডেন হিরো’ উপাধি পেল ঝিনাইগাতীর মোশারফ | মানিকগঞ্জে নতুন আরও ১৪ জনের করোনা শনাক্ত | হাতীবান্ধায় উপ-নির্বাচনে ১০ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল | বাগেরহাটে কোষ্টগার্ডের অভিযানে ৩ লাখ বাটা পোনা অবমুক্ত | সাওতাল কিশোরীকে ধর্ষণ, বিমান ও সেনা সদস্যসহ দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা | ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে নৌকায় তুলে ধর্ষণ! ধর্ষক গ্রেফতার | ‘দুর্নীতির প্রশ্নে কোনো ছাড় দেওয়া হচ্ছে না’- স্বাস্থ্যমন্ত্রী |
  • আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উ.কোরিয়ায় করোনা হলেই গুলি করে হত্যার নির্দেশ!

১২:৫৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- উত্তর কোরিয়ায় কারও করোনা হলেই তাকে গুলি করে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এমন বিস্ফোরক তথ্য সামনে এনেছেন দক্ষিণ কোরিয়ায় নিযুক্ত মার্কিন কমান্ডার রবার্ট আব্রাহাম। তার দাবি, সংক্রমণ রুখতে করোনা আক্রান্তদের গুলি করে মারছে পিয়ংইয়ং।

গত বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনের সেন্টার ফর স্ট্র্যাট্রেজিক অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ আয়োজিত একটি অনলাইন কনফারেন্সে অংশ নিয়ে এ দাবি করেন আব্রাহাম। টাইমস অব ইন্ডিয়া, ডেকান ক্রনিকেলসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এক মর্মান্তিক পদ্ধতি অবলম্বন করেছেন উত্তর কোরিয়ার স্বৈরাচারি শাসক কিম জং-উন। রবার্ট আব্রাহামের দাবি, করোনা আক্রান্ত কোনো ব্যক্তির চিকিৎসার বদলে দেখা মাত্র গুলি করার নির্দেশ দিয়েছেন কিম। এর জন্য একটি বিশেষ বাহিনীও তৈরি করেছে তার দেশ। তারাই করোনা আক্রান্তকে গুলি করে হত্যার দায়িত্বে রয়েছে।

ভঙ্গুর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে ভাইরাসের বড় ধরনের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলা করা প্রায় অসম্ভব দারিদ্রপীড়িত উত্তর কোরিয়ার জন্য। গত বছরের ডিসেম্বরে মিত্র ও প্রতিবেশি চীন থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি এবং বিশ্বজুড়ে ব্যাপক প্রাদুর্ভাব চললেও উত্তর কোরিয়া এখন পর্যন্ত একজন রোগী পাওয়ার তথ্যও নিশ্চিত করেনি।

সংক্রমণের বিস্তার রোধে গত জানুয়ারিতে চীনের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেয় পিয়ংইয়ং। জুলাইয়ে দেশটির সরকারি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, করোনার বিস্তার প্রতিরোধে দেশে জরুরি অবস্থা সর্বোচ্চ স্তরে উন্নীত করা হয়েছে।

কোরিয়ায় মার্কিন সামরিক বাহিনীর কমান্ডার রবার্ট আব্রামস বলেছেন, সীমান্ত বন্ধ করে দেয়ার কারণে চোরাই পণ্যের চাহিদা বেড়ে যায়। ফলে কর্তৃপক্ষ সীমান্তে ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করতে বাধ্য হয়।