• আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় অন্তসত্বা গৃহবধুকে বিষ খাইয়ে হত্যার অভিযোগ

২:৪৬ অপরাহ্ণ | রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০ রংপুর
mrittu

মাজহারুল ইসলাম লিটন, ডিমলা (নীলফামারী): নীলফামারীর ডিমলায় চার মাসের অন্তসত্বা গৃহবধুকে বিষ খাইয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামীকে আটক করেছে ডিমলা থানা পুলিশ।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার কুমারপাড়া (তেল্লাইপার) এলাকার মৃত টোকরা মামুদের ছেলে ইয়াকুব আলী(৪৫) এর সাথে উত্তর তিতপাড়া (রহমতপুর) গ্রামের আনারুল ইসলামের মেয়ে শাবানা আক্তার(২৫) এর ৪ বছর পূর্বে পারিবারিকভাবে বিবাহ হয়।

বিবাহের পর শাবানার গর্ভে রিক্তা আক্তার নামে (বর্তমান বয়স ০৩ তিন বছর) কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। শাবানা ২য় বার ৪ মাসের অন্তসত্বা হলে গত বৃহঃবার বিকেলে শাবানার স্বামী ইয়াকুব আলী ও তার ১ম স্ত্রী শাহিদা বেগম(৪৪) শাবানার গর্ভে পুত্র সন্তান হলে ইয়াকুবের পরিবারভুক্ত লোকজন জমি জমা হতে বঞ্চিত হবে মর্মে সন্তান নষ্ট করার জন্য শাবানা আক্তারকে ঘরে আটক করে জোর পূর্বক কীটনাশক জাতীয় ঔষধ সেবন করায়।

শাবানা ঔষধ সেবন করে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে পিতার বাড়ীর লোকজন খবর পেয়ে ওইদিন সন্ধায় অসুস্থ্য শাবানাকে উদ্ধার করে ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়। ডিমলা হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় শাবানার অবস্থার অবনতি হলে ডিমলা হাসপাতাল কতৃপক্ষ উন্নত চিকিৎসার জন্য শাবানা আক্তারকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।

রংপুর নিয়ে যাওয়ার পথে শাবানা আক্তারের মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে শাবানার পিতা আনারুল ইসলাম বাদী হয়ে শাবানার স্বামী ইয়াকুব আলী ও ১ম স্ত্রী শাহিদা বেগমকে নামীয়সহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনকে আসামী করে শনিবার ডিমলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ডিমলা থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলার সূত্র ধরে শনিবার রাতে এজাহার নামীয় আসামী শাবানার স্বামী ইয়াকুব আলীকে আটক করা হয়।