🕓 সংবাদ শিরোনাম

পরীমনি ভাগ্যবতী, ত্ব-হা’র পরিবারের সেই সৌভাগ্য হয়নি: সংসদে রুমিন ফারহানাচট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ১৫৮ জনযাত্রাবাড়ী থেকে হেফাজত নেতা আজহারুল ইসলাম গ্রেফতারদালাল নির্মূলে মিটফোর্ড হাসপাতালে র‍্যাবের অভিযান, আটক ২৩সাইকেল চালিয়ে পদ্মা পাড়ি, পারেন প্লেন তৈরি করতেও!ত্রিশালের সাবেক এমপি এমএ হান্নান আর নেইনগদ টাকা ও ইয়াবা তৈরীর বিপুল পরিমাণ উপাদানসহ ৩ রোহিঙ্গা আটকস্বামীর খোঁজে প্রধানমন্ত্রীকে ‘মা’ ডেকে আবু ত্ব-হার স্ত্রীর চিঠিনাসির ইউ মাহমুদসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলাসৌদিতে রোদের মধ্যে শ্রমিকদের ৩ মাস কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ

  • আজ মঙ্গলবার, ১ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ১৫ জুন, ২০২১ ৷

জাইমার বিএনপির নেতৃত্বে আসার তথ্য মনগড়া: মির্জা ফখরুল


❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- দেশে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কন্যা জাইমা রহমানকেও দলের দায়িত্বে নিয়ে আসার সম্ভাবনার বিষয়টি বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। তবে এমন তথ্যকে ‘মনগড়া’ বলে দাবি করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সাংবাদিকরা মাঝেমধ্যে গল্প তৈরি করতে পছন্দ করেন এবং তা নিয়ে আলোচনাও হয়। এটা জাতিগত বিনোদনও বটে।

সম্প্রতি জার্মান ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডয়চে ভেলে বাংলার ইউটিউব টক শো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’- এর অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব। ডয়চে ভেলের বাংলা বিভাগের প্রধান খালেদ মুহিউদ্দীনের এক প্রশ্নের জবাবেই মীর্জা ফখরুল সাংবাদিকদের নিয়ে এমন মন্তব্য করেন।

ওই টকশোতে করা এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই মুহূর্তে তারেক রহমান দেশে ফিরুন দলই তা চায় না। তারেক রহমানের দেশে ফেরা সরকারই বন্ধ করে দিয়েছেন। যেসব মামলাতে একতরফা রায় দিয়ে দিয়েছেন, যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৩৬-৩৭টা মামলায় তার অন্য সাজাও হয়েছে। সুতরাং এই মুহূর্তে তার দেশে ফেরাটা দলই মনে করছে না নিরাপদ হবে। দলের সার্বিক নেতৃত্বেও এর ফলে সংকট সৃষ্টি হতে পারে।’

মির্জা ফখরুল জানান, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সুস্থ রয়েছেন, খালেদা জিয়াও যথেষ্ট সক্ষম রয়েছেন৷ ফলে মামলা থেকে বের হয়ে আসতে পারলে বা কোনোভাবে ‘রাজনৈতিক পটপরিবর্তন’ হলে খালেদা জিয়াই দেশের নেতৃত্ব দিতে সম্পূর্ণ সক্ষম বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

১৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জন্মদিনে উপহার পাঠালেও পরবর্তীতে তা প্রত্যাহার করার সংবাদও বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে৷ তবে এর সত্যতা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেন মির্জা ফখরুল৷ তিনি বলেন, ‘‘চীনা দূতাবাসের পক্ষ থেকে এমন কোনো বক্তব্য আসেনি, এসেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে৷ আমরা নিজেরাও কনফিউজড৷ চীনের কূটনীতি এতটা কাঁচা নয়৷”

আলোচনায় উঠে আসে মহাসচিব হিসেবে বিএনপিকে নেতৃত্ব দিতে ব্যর্থতার অভিযোগের প্রসঙ্গও৷ এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘‘এটা আমার বিবেচনার বিষয় নয়, এটা জনগণ বলবে, পার্টি সিদ্ধান্ত নেবে৷ কিন্তু দল এখনও আমাকে এমন কোনো কথা বলেনি৷”

তিনি বলেন, ‘‘দেশে কী আসলেই কোনো রাজনীতি আছে? ২০১২ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিলের পর থেকে আওয়ামী লীগ একদলীয় সরকারব্যবস্থা চালু করতে চাচ্ছে৷ রাজনৈক দলগুলোকে অকার্যকর করে দেয়া, রাজনৈতিক নেতৃত্বদের হেনস্তা করা হচ্ছে৷ এখন রাজনৈতিক দল, এমনকি মিডিয়াও স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না৷”

বিএনপি এখন রাজনীতির ঠিক পথেই আছে বলে মনে করেন মির্জা ফখরুল৷ তিনি বলেন, ‘‘বিএনপি উদারপন্থি রাজনৈতিক দল৷ কিন্তু দেশে এখন স্বাভাবিকভাবে রাজনীতি করার কোনো উপায় নেই৷ দেশে গণতন্ত্রের কোনোকিছুই অবশিষ্ট নেই৷”