🕓 সংবাদ শিরোনাম

সৈকতে ভেসে আসল হাজার হাজার মাল্টা!সিলেটে স্ত্রীসহ দুই সন্তানকে হত্যা: সন্দেহের তীর স্বামী হিফজুরের দিকেকেরানীগঞ্জে ফুটবল আনতে খালে নেমে দুই বন্ধুর মর্মান্তিক মৃত্যু‘যমুনা পাড়ের জনপদ’র মাসব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিসংবাদ সম্মেলনে বিয়ারের বোতল সরিয়ে রাখলেন পগবাহজে সাধারণ কাপড় বাদ,আসছে ন্যানোটেকনোলজি যুক্ত ইহরামপরীমনির বিষয়ে যা বললেন অল কমিউনিটি ক্লাবের প্রেসিডেন্টরাঙামাটির চন্দ্রঘোনায় এলজি ও কার্তুজসহ পাহাড়ি সন্ত্রাসী আটকমুহাম্মাদ আদনানকে খুঁজতে হাইকোর্টে লড়তে চান ব্যারিস্টার সুমনটাঙ্গাইলে পৌঁছেছে চীনের ভ্যাকসিন, প্রয়োগ শুরু ১৯ জুন

  • আজ বৃহস্পতিবার, ৩ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ১৭ জুন, ২০২১ ৷

চাঁদপুরে আমন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ৭০ হাজার মেট্রিক টন

cal
❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ চট্টগ্রাম

এস. এম ইকবাল, চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ চাঁদপুর জেলায় চলতি ২০২০-২১ অর্থবছর আমন চাষাবাদের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬ হাজার ৬শ ৫০ হেক্টর এবং উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ৭০ হাজার ৪শ ৯০ মেট্রিক টন চাল। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি, চাঁদপুর ১৩ সেপ্টেম্বর এ তথ্য জানায়।

সুদীর্ঘ ৬০-৬৫ বছরের নদী ভাঙ্গনের ফলে চাঁদপুর মেঘনা নদীর পশ্চিম তীরে রয়েছে ১১টি বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল। চরাঞ্চলগুলোতে প্রচুর পরিমাণে কৃষি পণ্য উৎপাদন হয়ে থাকে। এর মধ্যে ধান, পাট, মরিচ, ভুট্টা, আলু, শাক-সবজি ও অন্যান্য রবি ফসল। পাশাপাশি রয়েছে গরু, ছাগল, মহিষ ও হাঁস-মুরগির প্রতিপালন।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, চাঁদপুর জেলার মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্প চাঁদপুর ভেতরে এবং বিস্তীর্ণ নদীতীরবর্তী এলাকাগুলোতে এ রোপা আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

রোববার ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১৯ হাজার ৪শ ৯০ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ করা হয়েছে বলে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি চাঁদপুরে কর্তব্যরত কৃষিবিদ আবদুল মান্নান জানিয়েছেন । আগামি ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিস্তীর্ণ এলাকায় এর চাষাবাদ বিদ্যমান থাকবে।

কৃষি বিভাগ সূত্র মতে, চাঁদপুরে কৃষি পণ্য উৎপাদনে ৫০ হাজার মে.টন রাসায়নিক সার বরাদ্দ দিয়েছে সরকার।

প্রণোদনা কমৃসূচির অধীন ২০২০-‘২১ অর্থবছরে ৩১৫ কেজি শাক-সবজির বীজও বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চাঁদপুর দেশের অন্যতম কৃষি প্রধান অঞ্চল। এ জেলার ওপর দিয়ে মেঘনা, পদ্মা, ডাকাতিয়া ও মেঘনা-ধনাগোদা এ ৪টি নদী প্রবাহিত হওয়ায় এ অঞ্চলের জরবায়ু কৃষি পণ্য উৎপাদনে খুবই উপযোগী। মাটিও উর্বর।

নদীগুলোর জোয়ার-ভাটার পানিতে জমিগুলো প্রতিনিয়ত:ই কৃষি চাষাবাদে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।