সংবাদ শিরোনাম
শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে মাগুরায় পথ শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ | “সৃষ্টিকর্তার রহমতে বাংলাদেশে ব্যাপক হারে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হয়নি” | ভারতের ভ্যাকসিন সমগ্র মানবজাতির কল্যাণে ব্যয় করা হবে: মোদি | ‘সিগারেট খেয়েছি, ড্রাগস নয়..ড্রাগস নিত সুশান্ত’- সারা আলী খান | ৫ অক্টোবর ঢাকায় আসছেন ভারতের নতুন হাইকমিশনার | পাবনা-৪ আসন উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস বিজয়ী | ‘বাংলাদেশের বিপুল পরিমাণ ভ্যাকসিন উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে’- শেখ হাসিনা | ‘মিয়ানমারকেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে’- প্রধানমন্ত্রী | শেরপুরে শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে আটক-১ | পদত্যাগ করলেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আদিব |
  • আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘উড়ো চিঠি গোয়েন্দা সংস্থার কাছে পাঠানো হয়েছে’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৫:২৫ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০ জাতীয়
soras

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার উড়ো চিঠি বা ফোন কলের জেরে নয় বলে দাবি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, কারাগার থেকে আসামির পলায়নের পরই কারাগুলোর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

১৩ সেপ্টেম্বর কারা মহাপরিদর্শক স্বাক্ষরিত চিঠি পাঠিয়ে কারা নিরাপত্তা জোরদারে তাগিদ দেয়া হয়। চিঠিতে বিশেষ ফোর্স গঠন ও অস্ত্রের নিরাপত্তা, সিসিটিভি পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা, জঙ্গি, আইএস, শীর্ষ সন্ত্রাসী ও সংবেদনশীল মামলায় আটক বন্দিদের গতিবিধি কঠোর নজরদারিতে রাখাসহ ১৮টি নির্দেশনা দেয়া হয়।

সম্প্রতি লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক ও জেল সুপারের কাছে একটি উড়ো চিঠি আসে। চিঠিতে কারাগারে বন্দি জঙ্গিদের ছিনিয়ে নেয়ার হুমকি দেয়া হয়।

লালমনিরহাট জেলা কারাগারের জেল সুপার কিশোর কুমার নাগ গণমাধ্যমকে জানান, তাদের কারাগারে ২০ জন জঙ্গি রয়েছে। তাদের ছিনিয়ে নেয়ার জন্য একটি উড়ো চিঠি এসেছিল। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানোর পর কারা মহাপরিদর্শকের নির্দেশে কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

লালমনিরহাট কারাগারে একটি উড়ো চিঠি এসেছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওই কারাগারে এমন চিঠি সব সময়ই আসে। তারপরও চিঠিটি যাচাইয়ের জন্য গোয়েন্দাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। তারা যাচাই করে দেখবে।

সম্প্রতি একটি কারাগার থেকে আসামি পালানোর ঘটনার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, কারারক্ষীদের দুর্বলতার কারণে একজন আসামি সম্প্রতি পালিয়ে গেছে। এ ঘটনার পর দেশের কারাগারগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

মিয়ানমার সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে সেখানে আমাদের কী ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা আমাদের অতীত অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি সীমান্তে মাঝেমধ্যেই সৈন্য সামন্ত বাড়ান বা অবস্থান করেন। এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তাদের জানানো হয়েছে। তাদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে সীমান্তে সেনা মোতায়নের কারণের ব্যাখ্যা চেয়েছেন আমাদের সচিব পর্যায়ে বৈঠকে। এছাড়া আমরা আমাদের পক্ষ থেকে যেকোনো সময় যেকোনো পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকি। এটা নতুন কিছু নয়।

বিজিবি ও বিএসএফের বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে কোনো পরিবর্তন আসতেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিজিবি ও বিএসএফ আলোচনা প্রতিবছরই হয়। সেখানে আমাদের বিজিবির ডিজি যান ও তারাও আসেন। এই প্রক্রিয়া চলমান। আমরাও ভারতে যেয়ে থাকি ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও আসেন। আমাদের সঙ্গে চমৎকার সম্পর্ক আছে। তারিখ তো পরিবর্তন হতেই পারে যেকোনো কারণে। আগরতলা-আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসবেন। তবে কয়দিন অবস্থান করবেন সেটা বিজিবির ডিজি জানেন।

সীমান্ত হত্যার বিষয়ে কোনো আলোচনা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই মুহূর্তে আমার কাছে এজেন্ডাগুলো নেই। তবে এসব বিষয়গুলো আলোচনা হবে। তাদের সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্ব সুলভ সম্পর্ক রয়েছে। তাই তাদের সঙ্গে আমাদের যেসব বিষয়ে সমস্যা রয়েছে সব নিয়ে আলোচনা হবে।