শেরপুরের তিন উপজেলায় পাহাড়ী ঢলে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

১১:৩৩ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ ময়মনসিংহ
ser

মুহাম্মদ আবু হেলাল, শেরপুর প্রতিনিধি: গত দু’দিনের অবিরাম বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানিতে শেরপুরের সীমান্তে ৩টি উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

নালিতাবাড়ি উপজেলার ভোগাই, চেল্লাখালী,ঝিনাইগাতী উপজেলার মহারশি, সোমেশ্বরী কালঘোষা, শ্রীবরদী উপজেলার কর্ণঝুড়া নদীতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানি বিপদসীমার কাছাকাছি দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গত দু’দিনের অতি বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে নিম্নাঞ্চলের শত শত একর জমির রোপিত আমন ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। পাহাড়ী ঢলের পানির তুড়ে মহারশি নদীর রামেরকুড়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে ঝিনাইগাতী উপজেলা পরিষদ চত্বর, কোর্ট বিল্ডিং, পোষ্ট অফিস, সাবরেজিষ্ট্রী অফিস চত্বরে ঢলের পানি প্রবেশ করে দাপ্তরিক কর্মকান্ড ব্যাহত হয়।

সদর বাজারে পানি প্রবেশ করায় ব্যবসায়ীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছে। ধানশাইল, আয়নাপুর বাজারে সোমেশ্বরী নদীর পানি প্রবেশ করায় দুর্ভোগে পরেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। এছাড়া ঢলের পানিতে তলিয়ে গেছে ৩ উপজেলার প্রায় ৪০ টি গ্রাম।

বৃহস্পতিবার সকালে বর্ষণের সাথে ঝড় হাওয়ায় শ্রীবরদী উপজেলার তাতিহাটি ইউনিয়নের চককাউরিয়া গ্রামের সুজা মিয়া, শহিদুল্লাহ ও আবেদীন মিয়ার ৩ টি বসতবাড়ি বিধ্বস্ত হয়।

খবর পেয়ে শ্রীবরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা আকতার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে আর্থিক সহায়তা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

hati শেরপুরের গারো পাহাড়ে বন্য হাতির মৃত্যু

শুক্রবার, অক্টোবর ১৬, ২০২০