• আজ ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঢাকা শিশু হাসপাতালে নার্স নিয়োগ: পরীক্ষার্থীকে উত্তর ‘বলে দিলেন’ স্বাচিপ নেতা লিটন

১২:৫২ অপরাহ্ন | রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- রাজধানীর শ্যামলীতে অবস্থিত ঢাকা শিশু হাসপাতালে নার্স নিয়োগ পরীক্ষায় এক পরীক্ষার্থীকে প্রশ্নের উত্তর বলে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. জহিরুল ইসলাম লিটনের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) শিশু হাসপাতালের নার্স নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় পরীক্ষার হল করিডোর ২ তে এক পরীক্ষার্থীকে অনেক্ষণ ধরে প্রশ্ন বলে দিচ্ছিলেন ডা. লিটন, এমন একটি ভিডিও ফাঁস হয়। এ ঘটনায় হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

ডা. জহিরুল ইসলাম লিটন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) শিশু হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ও হাসপাতালের অ্যানেসথেসিয়া বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বলে জানা গেছে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, ওই রুমের দায়িত্বে থাকা ডা. রেজওয়ানা রিমা সামনে চেয়ারে বসে আছেন। ডা. লিটন পরীক্ষার হলের মাঝামাঝি বোরকা পরিহিত এক পরীক্ষার্থীর পাশে দাঁড়িয়ে নিচু হয়ে কিছু একটা বলছেন। আর ওই পরীক্ষার্থী উত্তরপত্রের বৃত্ত ভরাট করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের এক চিকিৎসক জানান, শনিবার সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত শিশু হাসপাতালের নার্স নিয়োগের এমসিকিউ পরীক্ষা হয়। এ সময় করিডর ২-এ একজনকে অনেকক্ষণ ধরে প্রশ্নের উত্তর বলে দিচ্ছিলেন ডা. লিটন। পরীক্ষার্থী ও চিকিৎসকরা তখন বিব্রত হন।

তবে লিটন স্বাচিপ নেতা হওয়ায় কেউ তার বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস দেখাননি। তিনি সবার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। দায়িত্বে থাকা আরেক চিকিৎসক উত্তর বলার সময় গোপনে তা ভিডিও করেন।

এ ব্যাপারে ওই পরীক্ষার হলের দায়িত্বে থাকা ডা. রেজওয়ানা রিমা বলেন, জহিরুল ইসলাম লিটন করিডর ২-এ কোনো দায়িত্বে ছিলেন না। এখানে আমরা চারজন দায়িত্বে ছিলাম। ঘটনার সময় একটু ব্যস্ত থাকায় বিষয়টি লক্ষ করতে পানিনি।’

জানতে চাইলে ডা. জহিরুল ইসলাম লিটন মুঠোফোনে সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, এটা নিয়ে আমার কিছু বলার নেই। উল্টো এই প্রতিবেদককে প্রশ্ন করেন, ‘এক মিনিটে কি সব প্রশ্নের উত্তর বলে দেওয়া যায়? কতটুকু বলতে পারবেন আপনি বলেন?’

তিনি বলেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমার বিরুদ্ধে এসব কে করছে সেটা আমি জানি। ওই সমস্ত লম্পট, বাস্টার্ড বড় হয়েছে এগুলো করে, আর আমরা রাজনীতি করে এই পর্যন্ত এসেছি। তাই এ নিয়ে উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন মনে করি না।

এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক ডা. সৈয়দ শফি আহম্মেদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। পরে উপপরিচালক ডা. প্রবীর কুমার সরকারকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তিনি কেটে দেন।

সময়ের কণ্ঠস্বর/আরআই

মিন্নি কয়েদির পোশাকে মিন্নির ‘ছবি’ ভাইরাল

শনিবার, অক্টোবর ৩১, ২০২০

cyber ফ্রান্সে বড় সাইবার হামলার ঘোষণা

মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৭, ২০২০

selim ইরফান সেলিম কাউন্সিলর পদ থেকে বরখাস্ত

মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৭, ২০২০