• আজ ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়াকে ফের কারাগারে পাঠানোর দাবি ওঠতে পারে: তথ্যমন্ত্রী

◷ ৭:১৯ অপরাহ্ন ৷ রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ জাতীয়
e5190c3e5c2aa84aa625c1c91a33f706 5ef7177e2a1d2

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- সরকার দ্বিতীয় দফায় খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করলেও বিএনপি নেতারা তার বিষয়ে যেভাবে বক্তব্য দিচ্ছেন, তাতে তাকে ফের কারাগারে পাঠানোর দাবি উঠতে পারে বলে সংশয় প্রকাশ করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

সচিবালয়ে রোববার এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী বলছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার সাজা দুই দফায় ছয় মাস করে স্থগিত করে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

দ্বিতীয় দফা ছয় মাস সাজা স্থগিত করা হলেও খালেদা জিয়াকে অন্তরীণ রাখা হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর। এনিয়ে একজন সাংবাদিক তথ্যমন্ত্রীর মন্তব্য চান।

জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, “মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য প্রচন্ড হাস্যকর। মির্জা ফখরুলের বক্তব্যের মাধ্যমে এই প্রশ্নই আসে প্রধানমন্ত্রী তার যে ক্ষমতাবলে খালেদা জিয়াকে কারগার থেকে মুক্তি দিয়েছেন মির্জা ফখরুল যেভাবে কথাবার্তাগুলো বলছেন এবং তাদের অন্যান্য নেতারা যে কথাগুলো বলছেন এতে মনে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী যে মহানুভবতা দেখিয়েছেন সেটি না দেখালেই ভালো হত।

“কারণ তিনি সাজাপ্রাপ্ত আসামি, তার তো কারাগারেই ভেতরেই থাকার কথা ছিল। তিনি আদালত থেকে তো জামিন পাননি। তাকে প্রধানমন্ত্রী প্রথমে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দিয়েছেন, পরে আরও ছয় মাস সেটি বর্ধিত করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন। মির্জা ফখরুলের উচিত ছিল এই মহানুভবতার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো। কিন্তু সেটি তারা করছেন না।”

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবসহ তাদের অন্যদের বক্ত্যবের প্রেক্ষিতে জনগণের পক্ষ থেকে হয়ত বলা হতে পারে বা এখনই বলা হতে পারে তাকে (খালেদা জিয়া) আবার কারাগারে পাঠানো হোক। এই দাবি উঠে কিনা, সেটিই বড় প্রশ্ন।

হাছান মাহমুদ বলেন, হত্যার রাজনীতির মাধ্যমে বিএনপির উন্মেষ। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান হত্যার রাজনীতির মাধ্যমেই ক্ষমতা দখল করে দল গঠন করেন। সেই ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করার জন্য হাজার হাজার সেনাবাহিনীর জোয়ান-অফিসারদের হত্যা করা, আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের শত শত হাজার হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা করেছিল। খালেদা জিয়াও সেই হত্যার রাজনীতি অব্যাহত রেখেছেন।