• আজ ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে ‘টুইনডেমিক’ আতঙ্ক

১০:০৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ আন্তর্জাতিক
usss

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনা আতঙ্ক শেষ না হতেই এবার যুক্তরাষ্ট্রে নতুন ভাইরাস ‘টুইনডেমিক’ নিয়ে আতঙ্ক শুরু হয়েছে। মার্কিন সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) জানিয়েছে, অক্টোবরের আগে থেকেই এই ফ্লু-এর প্রকোপ আরও বাড়বে আমেরিকায়। এদিকে শীতের সময় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার শঙ্কাও রয়েছে।

সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত এই সময়টাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফ্ল‌ু সিজনও বলা হয়। অর্থাৎ ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে দেখা দেয় জ্বর-ঠাণ্ডা-কাশির মতো প্রকোপ। এদিকে এমনিতেই কোভিড-১৯ এর কারণে নাজেহাল অবস্থা দেশটির। এর সঙ্গে আবার ইনফ্লুয়েঞ্জা বা ফ্লু-এর প্রকোপের আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকেরা। এই পরিস্থিতিকে তারা বলছেন, ‘টুইনডেমিক সিচুয়েশন’।

চিকিৎসকরা বলছেন, সবচেয়ে আতঙ্কের হলো কোভিড-১৯ এবং ফ্লু-এর উপসর্গ প্রায় একই রকম। রোগীর শরীরে উপসর্গ দেখে কী হয়েছে তা বলা বেশ কঠিন।

সংক্রামক ব্যাধি বিশেষজ্ঞেরা জানাচ্ছেন, মানুষ বলতে পারছেন না, কিসের অসুস্থতা। দুই রোগেরই সাধারণ উপসর্গ হলো জ্বর, সর্দি-কাশি, প্রবল ঠাণ্ডা লাগা এবং শ্বাস নিতে কষ্ট। তবে পার্থক্য কোভিডে গন্ধ, স্বাদের মতো অনুভূতি চলে যায়। কিন্তু করোনা আক্রান্ত সকলেরই যে আবার স্বাদ-গন্ধ চলে যাওয়ার লক্ষণ দেখা দিচ্ছে, তেমনটা নয়। আবার ফ্লু-তেও অনেক সময় ঠাণ্ডা লেগে নাক বন্ধ হয়ে যায়, জিভের স্বাদ চলে যায়।

অতএব করোনা-পরীক্ষার রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত রোগ নির্ণয় করা বেশ মুশকিল। আবার ফ্লু এবং কোভিড-১৯, দুই রোগ এক সঙ্গে হওয়ার আশঙ্কাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিশেষজ্ঞেরা।

জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক ব্যাধি বিভাগের পরিচালক গ্যারি সাইমন বলেন, ‘এ বছরটা ভয়ানক কঠিন হতে চলেছে। হয় ফ্লু, না-হলে করোনা’।

উল্লেখ্য বিশ্বের অন্য যেকোনও দেশের চেয়ে করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যুর হারে এগিয়ে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়েছে।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) দেশটিতে নতুন করে ৯৬৯ জন করোনায় মারা গেলে, মৃত্যুর সংখ্যা ২ লাখ পাঁচ হাজার ৪৭১ জনে দাঁড়ায়। একইদিন আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩৫ হাজার ৭’শ মার্কিনি। শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই এ পর্যন্ত প্রায় ৭১ লাখ মানুষ কোভিড ১৯ -এ আক্রান্ত হয়েছেন।