মাদকসেবী সন্দেহ হলেই হাসপাতালে নিয়ে ডোপ টেস্ট করাচ্ছে পুলিশ

◷ ৯:৪৮ পূর্বাহ্ন ৷ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ খুলনা
dop

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালিত হয়েছে। বুধবার(২৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমানের তত্ত্বাবধানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাতক্ষীরা সদর সার্কেল) মীর্জা সালাউদ্দীন ওই অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযানে বাহ্যিক লক্ষণ বিবেচনায় এবং উপস্থিত ডাক্তারের পরামর্শে ২৬ জনকে মাদকসেবী সন্দেহে ডোপ টেস্ট এর জন্য সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। ডোপ টেস্টে ১৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ ও ১১ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাতক্ষীরা সদর সার্কেল) মীর্জা সালাউদ্দীন বলেন, সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন থানা, পার্শ্ববর্তী জেলা যশোর ও খুলনার মাদক সেবীরা কলারোয়া থানার সীমান্তবর্তী এলাকা কেড়াগাছী, সোনাবাড়িয়া, চন্দনপুর, জালালাবাদ ও ঝিকড়া এলাকায় এসে মাদক সেবন করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই অভিযান পরিচালিত হয়।অভিযানে ১৫ জন মাদকাসক্ত বলে প্রমাণিত হয়। ওই ১৫ জন এর নিকট যারা মাদক বিক্রি করেছিল তাদেরকে শনাক্তের কাজ চলছে।

তিনি আরো বলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ অনুসারে মাদক সেবন ধর্তব্য অপরাধ। মাদকসেবীদেরকে আইনের আওতায় এনে তাদের স্বীকারোক্তিতে প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীদেরও আইনের আওতায় আনা সম্ভব। কারন চাহিদার সাথে যোগানের সম্পর্ক। মাদকের চাহিদা কমলে যোগানো কমবে।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন কার্যালয় এর মেডিকেল অফিসার জয়ন্ত সরকার, কলারোয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হারান চন্দ্র পাল, পুলিশ পরিদর্শক (ডিবি) আজিজুর রহমান, এসআই মনিরুল ইসলাম, তনময়, সোহরাব হোসেন, রেজাউল করিমসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা।

কলারোয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) হারান চন্দ্র পাল বলেন, শনাক্তকৃত ১৫ মাদকসেবীর বিরুদ্ধে থানায় “মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।