সংবাদ শিরোনাম
ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় খাল থেকে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার | আশুলিয়ায় মাছ ধরতে বাঁধা দেওয়ায় বাবা-মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ | দেশে এখন কোন মানুষ অনাহারে থাকে না: কৃষিমন্ত্রী | ‘সর্বত মঙ্গল রাধে’ গান নিয়ে বিতর্কে যা বললেন চঞ্চল চৌধুরী | ইসলাম ধর্ম নিয়ে ‘কটূক্তি’ করলেন জবি ছাত্র অধিকার পরিষদের নেত্রী | আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রীর নির্যাতনের শিকার সেই গৃহকর্মী শিশুর মৃত্যু | আক্রমণকারীদের প্রতিহতে অবশ্যই যুদ্ধ জরুরি: চীনা প্রেসিডেন্ট | নোয়াখালী সুবর্ণচরে চকলেটের লোভ দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ | যমুনায় মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে ২০ জেলের কারাদণ্ড! | ১২০০ পিস ইয়াবাসহ সাতক্ষীরায় গ্রেফতার ৫ |
  • আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে জাল স্বাক্ষর দিয়ে ঋনের টাকা আত্মসাৎ

১:৪০ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ রংপুর
Kurigram

অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গুচ্ছ গ্রাম সমিতির গরু মোটাতাজা করণ প্রকল্পের ঋনের টাকা বিতরণের নামে স্ট্যাম্পে জাল স্বাক্ষর করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে বিআরডিবির পল্লী উন্নয়নের কর্মকর্তা কর্মচারীর বিরুদ্ধে।

সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও উপজেলার বিআরডিবির পল্লী উন্নয়নের সভাপতি মজিবর রহমান ও সহ-সভাপতিসহ উপকারভোগীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে বিআরডিবির পল্লী প্রগতির গ্রাম সংগঠক সাইফুর রহমান ও সহকারী পল্লী উন্নয়ণ কর্মকর্তা এবং সাবেক উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছে।

অভিযোগে জানা গেছে,উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের যোতিন্দ্র নারায়ণ গুচ্ছ গ্রাম পুরুষ ও মহিলা দলের ঋন প্রদানের নাম করে সুবিধাভোগীর মাঝে পুরুষ দল ১৬ জন ও মহিলা দল ১৮ জন গ্রুপ করে প্রত্যেকে ১৬ হাজার টাকা করে ৫০ টাকার স্ট্যাম্পে মাষ্টার রোল তৈরী করে দু গ্রুপে ৫,৪৪,০০০ হাজার টাকা বিতরণ দেখানো হয়। কিন্তু দু গ্রুপের মহিলা ও পুরুষ মিলে সাত জনের নামে ভুয়া মাষ্টার রোল ও জাল স্বাক্ষর করে সাবেক উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তার যোকসাজসে মোট ১ লক্ষ ১২ হাজার টাকা আত্মসাত করেছেন বলে ভোক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগী মোশারফ হোসেন, নুর ইসলাম, শফিকুল, নাছিমা ও আর্জিনা বেগম জানান, স্ট্যাম্পে ও মাষ্টার রোলে আমাদের সই জাল করে আমাদের টাকা না দিয়ে অফিসাররা তুলে নিয়েছে। এমনকি আমাদের কোন প্রকার পাস বইও দেয়নি।

বিআরডিবির পল্লী উন্নয়ণের সভাপতি মজিবর রহমান জানান, সুবিধাভোগীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিনে গিয়ে তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া গেছে। সাত জনের নামে নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে জাল স্বাক্ষর ও ভুয়া মাষ্টাররোল বানিয়ে তাদের নামে ঋন বিতরণ দেখালেও বাস্তবে তারা কোন ঋনের টাকা পায়নি।  তবে তদন্ত প্রতিবেদন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট জমা দেওয়া হয়েছে।

প্রকল্পে দায়িত্বে থাকা সাবেক উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা বাবু বিজয় কুমার রায় ও বিআরডিবির পল্লী প্রগতির গ্রাম সংগঠক সাইফুর রহমান জানান, বিভাগীয় ব্যবস্থা যাহা হবে তাই মেনে নিবো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুর রহমান জানান, একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অভিযোগটি জেলায় পাঠানো হয়েছে।

দিনাজপুরে লড়াকু মুরগির গবেষণা খামার

শুক্রবার, অক্টোবর ২৩, ২০২০