২০ নারীর ভিডিও নিয়ে ব্লাকমেইল, কলেজছাত্র গ্রেফতার

১০:২৫ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ রাজশাহী

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি:একাধিক নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ধারণের পর প্রতারণার মাধ্যমে টাকা ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে বগুড়ায় এক যুবককে গ্রেফতার করেছে সাইবার ক্রাইম পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত যুবক তানজিমুল ইসলাম রিয়ন (২২) নওগাঁ জেলার চকদেবপাড়ার মৃত তাজুল ইসলাম কবিরাজের ছেলে। তবে সে দুপচাঁচিয়ার চৌধুরীপাড়ায় তার নানার বাড়িতে থাকতো।

গ্রেফতারকৃত যুবক কামরুজ্জামান ডিগ্রি কলেজ (জেকে) দুপচাঁচিয়াতে বিবিএস ১ম বর্ষে অধ্যায়নরত।

বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে দুপচাঁচিয়ার চৌধুরীপাড়ার তিনমাথা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বগুড়া সাইবার ক্রাইম পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক এমরান মাহমুদ তুহিন জানান, বৃহস্পতিবার সদর থানায় ভুক্তভোগী এক নারী, প্রতারক রিয়নের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মামলার পরেই সাইবার ক্রাইম পুলিশ তাকে গ্রেফতারে মাঠে নামে। পরে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে দুপচাঁচিয়ার চৌধুরীপাড়ার তিনমাথা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় তার কাছ থেকে একটি আইফোন এস ও দুইটি সিমকার্ড জব্দ করা হয়।

জেলা পুলিশের মিডিয়া মুখপাত্র ও সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এবং জব্দকৃত ডিভাইস পরীক্ষা করে দেখা যায় যে, একাধিক নারীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। তাদের মধ্যে ২০ জনের অধিক মেয়ের শরীরের বিভিন্ন অংশের অশ্লীল ছবি এবং ভিডিও তার ফেসবুক আইডির মেসেঞ্জারে সংরক্ষিত অবস্থায় আছে।

যা অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন যোগমাধ্যমে ভিডিও কলে কথা বলার সময় স্ক্রিন রেকর্ডারের মাধ্যমে ভিডিওচিত্র ও স্থিরচিত্র ধারণ করে আসছিল। পরে এগুলো ব্যবহার করে ব্লাকমেইলের মাধ্যমে টাকা পয়সাা ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেওয়াই ছিল তার মূল কাজ। তার বিরুদ্ধে সদর থানায পর্ণোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করে আদালতে প্রেরণসহ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন…আদমদীঘির বড়পুল রেল ব্রিজে ঝুঁকি নিয়ে চলছে ট্রেন

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি:বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার নসরতপুর ও আলতাব নগর রেলওয়ে স্টেশনের মাঝে বড়পুল নামে পরিচিত রেল ব্রিজের ওপর রেল লাইনে কিপ, নাট-বোল্ট নড়বড়ে হয়ে গেছে নড়বড়ে স্লিলারগুলো এলোমেলো ভাবে সরে যাচ্ছে।

এ ব্রিজের ওপর দিয়ে সান্তাহার-লালমনিরহাট রেলপথে প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে ট্রেন চলাচল করছে। এতে যে কোনে মূহুর্তে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ব্রিজের ওপর রেলওয়ে স্লিপারের সঙ্গে নাট-বোল্টের কোন সংযোগ নেই। স্লিপারগুলো এলোমেলো ভাবে সরে পড়েছে। এর কোন কোনটার কিপ, নাট-বোল্ট নেই। স্থানীয় লোকজন বাঁশ দিয়ে স্লিপারগুলো আটকানোর চেষ্টা করেছেন।

গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে কাঠের স্লিপার নষ্ট ও বাঁঁশের অংশ খসে পড়েছে। নসরতপুর গ্রামের লেলিন হোসেন জানান, ২০১৪ সালে সরকার বিরোধী আন্দোলনের সময় বিরোধী দলীয় লোকজন ব্রিজে কাঠের স্লিপারে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এ জন্য ব্রিজের বেশ কিছু স্লিপার আগুনে পুড়ে তিগ্রস্থ হয়। এগুলো পরে আর পাল্টানো হয়নি। দীর্ঘদিনের ব্যবধানে স্লিপারগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। এ জন্য রেল স্লিপারে কিপ না থাকায় এগুলো সরে গেছে। এ অবস্থায় ট্রেন চলাচলের সময় বিকট শব্দ হয়। জরুরী ভিত্তিতে এ সব মেরামত করা না হলে যানমালের য়তির আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে সান্তাহার রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম ডালিম জানান, রেলের সংশ্লিষ্ট বিভাগ ব্রিজ দেখাশুনা করেন। সান্তাহারে এর কার্যালয় নেই। এ ব্রিজের ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপকে জানানো হবে।