সংবাদ শিরোনাম
‘আমি এমন একজনের ভোট পেয়েছি, যার নাম ডোনাল্ড ট্রাম্প’ | বার্সেলোনাকে হেসে খেলে হারিয়ে রিয়ালের এল ক্লাসিকো জয় | ‘আমি ক্ষমতায় থাকি বা না থাকি, বিরোধী দলের নেতারা ক্ষমতায় ফিরবে না’- ইমরান | বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলো প্রেমিকা! | গৃহকর্মী সাদিয়ার বাড়িতে শোকের মাতম, জড়িতদের ফাঁসির দাবি | তেঁতুলিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন ২ জন | পঙ্গপালের আক্রমনে দিশেহারা ইথিওপিয়া, খাদ্য সংকট চরমে! | ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মানসিক পরীক্ষা করা দরকার: এরদোগান | চুল কেটে সিনেমা থেকে বাদ পড়লেন বাপ্পি চৌধুরী! | মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ: অভিযুক্ত মাদ্রাসা সুপারকে আটক করেছে জনতা |
  • আজ ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সীমান্তে অচলাবস্থা কাটাতে বৈঠকে বসছেন ভারত-চীনের সেনা কমান্ডাররা

৮:৫৫ পূর্বাহ্ন | সোমবার, অক্টোবর ১২, ২০২০ আন্তর্জাতিক
International

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আলোচনার রাস্তা থেকে সরবে না ভারত। আর চিন নিজের দখলদারি মনোভাব থেকে নড়বে না। এই পরিস্থিতিতে আজ  সোমবার (১২অক্টোবর) ফের সামরিক স্তরে বৈঠকে বসছে ভারত ও চিন। দুই দেশের শীর্ষ স্থানীয় কমান্ডাররা বৈঠকে বসবেন বলে জানা গেছে। সীমান্তে অচলাবস্থা কাটাতেই এই বৈঠকের সিদ্ধান্ত।

যদিও এর আগে একাধিকবার ভারত ও চিন সামরিক-কূটনৈতিক বৈঠকে বসেছে, তবে কোনও সমাধান মেলেনি। ফলে লাদাখে এখন চোখে চোখ রেখে দাঁড়িয়ে রয়েছে দুই দেশের সেনারা। ভারতের বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর জানিয়ে ছিলেন দীর্ঘ কয়েক দশক পর ভারত চিন সীমান্তে এই রকম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। পরিস্থিতি বেশ জটিল।

সোমবার লাদাখের চুশুলে দুদেশের সেনা কমান্ডাররা সপ্তম রাউন্ড বৈঠকে বসতে চলেছেন। নতুন করে যাতে সীমান্তের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক না হয়ে ওঠে, নতুন করে যাতে সংঘর্ষে না জড়িয়ে পড়ে দুদেশ, সেই বিষয়ে আলোচনা করতেই বৈঠকে বসতে চলেছে ভারত-চিন। ভারত চাইছে চিন নিজের অবস্থান বদলে পিছিয়ে যাক। মে মাসের আগের অবস্থানে চলে যাক চিনা সেনা। কিন্তু সেই প্রস্তাব মেনে নিতে রাজি নয় বেজিং।

এদিকে, ভারত চিন দ্বৈরথের মাঝে ফের ভারতের পাশে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। শনিবার আমেরিকার ন্যাশনাল সিকিওরিটি অ্যাডভাইজার রবার্ট ও ব্রায়েন জানান চিন এমন এক দেশ, যে কখনও শোধরাবে না। তাই ভারত যতই চেষ্টা করুক আলোচনার মাধ্যমে কোনও সমাধান বেরিয়ে আসবে না।

এদিন রবার্ট বলেন চিন দখলদারি চালাতে পছন্দ করে। ভারত চিন সীমান্তের অচলাবস্থা তারই তৈরি করা। সেই পরিস্থিতি থেকে কখনও বেরোতে চাইবে না বেজিং। কারণ গায়ের জোর দেখিয়ে এলাকা দখল করাই চিনের স্বভাব। সেই স্বভাব থেকে পিছিয়ে আসবে না জিংপিনের সরকার। সেই মনোভাব থেকেই ভারত সীমান্তে এলাকা দখলের চেষ্টা করেছিল চিন।