সংবাদ শিরোনাম
‘মাদরাসা শিক্ষা নিয়ে অপপ্রচারের সুযোগ নেই’- তথ্য প্রতিমন্ত্রী | ইয়েমেনের যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রীকে হত্যাকারী ঘাতক নিহত | বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসায় উপমহাদেশজুড়ে তোলপাড় হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী | মত প্রকাশের স্বাধীনতায়ও সীমাবদ্ধতা আছে: জাস্টিন ট্রুডো | ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার কারণে এক সপ্তাহে ৫ শিক্ষার্থী বহিষ্কার | জেমস বন্ড খ্যাত অভিনেতা শন কনারি মারা গেছেন | দালালদের ধরে দেওয়ার আহ্বান প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর | সম্প্রসারিত মেট্রোপলিটন এলাকাকে রাজশাহী সিটির অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন | আড়াইহাজারে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ঘোষণাসহ চার দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল | টাঙ্গাইলে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ২ |
  • আজ ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নির্যাতন মামলায় গ্রেপ্তার সোহাগের অনুসারীদের হামলার শিকার সাংবাদিকরা

১০:২১ অপরাহ্ন | সোমবার, অক্টোবর ১২, ২০২০ চট্টগ্রাম

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় আলোচিত নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের একলাশপুরে এবার সাংবাদিকদের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটিয়েছে বিবস্ত্র নির্যাতন মামলায় গ্রেপ্তার ইউপি সদস্যের অনুসারীরা। এ সময় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবুল কাশেমও হেনস্তার শিকার হন।

সোমবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলায় গ্রেপ্তার স্থানীয় ইউপি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহাগের অনুসারীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তবে, এ সময় কাউকে গ্রেপ্তার বা ছিনিয়ে নেওয়া ক্যামেরা উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

হামলার শিকার নিউজ ২৪ ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি আকবর হোসেন সোহাগ অভিযোগ করেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনিসহ আরো তিন সাংবাদিক জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে সাংবাদ সংগ্রহের কাজে যান। সাংবাদিকরা সোহাগ মেম্বারের বাড়ি থেকে ফেরার সময় পথে তার সহযোগী মিঠু, জয়নাল, আজাদ, রাসেল ও বাবুলসহ একদল যুবক তাদের মাইক্রোবাসের গতিরোধ করে। এ সময় তারা মাইক্রোবাসে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে এবং নিউজ ২৪ এর ক্যামেরাম্যান মেহেদি হাসান ও সময়ের কন্ঠস্বরের জেলা প্রতিনিধি ইমাম উদ্দিন সুমনকে মারধর করে। এক পর্যায়ে তারা সাংবাদিকদের একটি ক্যামেরা ও অন্য একটি ক্যামেরার মেমোরি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

অভিযোগ আছে প্রতিনিয়ত এলাকায় সাধারণ মানুষের ওপর তান্ডব চালাচ্ছে সোহাগ মেম্বারের বাহিনী।

এছাড়া ভূমি জবর দখল, মদক ব্যাবসা, খুন, ধর্ষণসহ বহু অভিযোগ আসতে শুরু করেছে সোহাগ বাহিনীর বিরুদ্ধে।

ঘটনার সময় সোহাগ বাহিনীর লাতিত সন্ত্রাসীরা সাংবাদিক, পুলিশ এবং র‍্যাবসহ যারাই ঐ এলাকায় যাবে তাদের মাথা কেটে নেয়ার হুমকি প্রদান করে।

এসময় সোহাগ বাহীনির সন্ত্রাসীরা সোহাগের মুক্তি চাই নইলে তোগো রক্ষা নাই, একটা একটা পুলিশ ধর সকাল বিকাল নাস্তা কর, একটা একটা সাংবাদিক ধর, সকাল সন্ধ্যা নাস্তা করে বলে স্লোগান দেয় এবং অকত্যভাষায় গালমন্দ করে।

সোহাগ বাহিনীর নির্মম নির্যাতনের ক্ষত নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে বহু পরিবার। ভয়ে কেউ মুখ খুলেনা। এসব সংবাদ প্রকাশ বন্ধ করতেই সাংবাদিকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়, নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন মামলায় গ্রেফতার হওয়া সোহাগ মেম্বারের বাহিনি।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবুল কাশেম জিএস জানান, ঘটনার সময় তিনি জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে ছিলেন। সাংবাদিকদেরকে ওপর হামলার ঘটনায় বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা তাকেও নানাভাবে হেনস্তা করে। হামলাকারীরা তাকে অকথ্য ভাষায় গালি দেয় এবং গায়ে পরিহিত মুজিব কোর্ট ধরে টানা হেঁচড়া করে।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি হারুন অর রশিদ চৌধুরী জানান, জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে সাংবাদিকদের ওপর হামলার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে, এর আগেই হামলাকারীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, নারীকে বিবস্ত্র নির্যাতনের ঘটনায় ভুক্তভোগীর দায়ের করা নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় একলাশপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহাগকে গত ৫ অক্টোবর গ্রেপ্তার করে পুলিশ। দুই দিনের রিমান্ড শেষে গত ৮ অক্টোবর এ মামলায় সে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। নির্যাতনের শিকার ওই নারী সোহাগ মেম্বারের কাছে বিচার চাইতে গেলে সোহাগ তাকে দেড় হাজার টাকা দিয়ে ঘটনাটি কাউকে না জানানোর পরামর্শ দেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর। তার বিরুদ্ধে এলাকায় মানুষের জায়গা দখল, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।