🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বৃহস্পতিবার, ৩ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ১৭ জুন, ২০২১ ৷

দেশের সকল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে: প্রতিমন্ত্রী


❏ মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৩, ২০২০ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- দেশের সকল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সিলেটে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ‘ফুল স্কেল এয়ারপোর্ট ইমারজেন্সি এক্সেরসাইজ- ২০২০’ ও আন্তর্জাতিক লাউঞ্জের সম্প্রসারিত অংশের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

মোঃ মাহবুব আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বিমানবন্দরে যাত্রী সেবার মান উন্নয়ন ও যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। দেশের সকল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। নিরাপত্তা নিশ্চিতে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও ইতোমধ্যে ফায়ার এলার্ম সিস্টেম, ডুয়েল ভিউ স্ক্যানিং মেশিন, ই.টি.ডি, আন্ডার ভেহিকেলস স্ক্যানিং সিস্টেমসহ সকল আধুনিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম স্থাপন করা হয়েছে।

বিমানবন্দর ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে কোন ধরনের আপোষ করা চলবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও মোকাবেলার জন্য বিমানবন্দরে কর্মরত সবাইকে সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে। নিরাপত্তায় বিঘ্ন সৃষ্টি করার চেষ্টাকারীদের কোন প্রকার ছাড় প্রদান করা হবে না।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও তত্ত্বাবধানে দেশের সকল আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দরে বড় ধরনের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। সিলেট বাসীর সুবিধার কথা ভেবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেরও সম্প্রসারণের কাজে হাত দেয়া হয়েছে। মোট ২ হাজার ৭৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে একাজ সম্পন্ন হবে। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৪৫১ কোটি ৯৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রানওয়ে শক্তিশালী করণ ও এয়ার ফিল্ড গ্রাউন্ড লাইটিং সিস্টেম স্থাপন কাজ সমাপ্তির পথে।

দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ গত ১ অক্টোবর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এ পর্যায়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় ২ হাজার ৩০৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এখানে নতুন আধুনিক টার্মিনাল ভবন, কার্গো ভবন, কন্ট্রোল টাওয়ার, প্রশাসনিক ভবন, ট্যাক্সিওয়ে ও ইউটিলিটি স্টেশন নির্মাণ করা হবে। এই কাজ সমাপ্তির পর ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হবে একটি আধুনিক বিমানবন্দর।