দিনাজপুরে সিম ক্ষেতে অজ্ঞাত রোগ, দিশেহারা কৃষক

২:০০ অপরাহ্ন | বুধবার, অক্টোবর ২১, ২০২০ ফিচার
সিম ক্ষেত

শাহ্ অলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকে- ধানের জেলা দিনাজপুরে অনেক আগে থেকেই সিম চাষের খ্যাতি রয়েছে। আর সেই ঐতিহ্য ধরে রাখতে জেলার অসংখ্য কৃষক এ মৌসুমেও সিম চাষে ঝুকে পড়েছে। কিন্তু, এবার সিম ক্ষেতে অজ্ঞাত রোগের আক্রমণ দেখা দেয়ায় দিশেহারা কৃষক। পাতা ও ফুল হলুদ বর্ণ ধারণ করে ঝরে যাচ্ছে। সত্য ফুটন্ত সিমে মধ্যেও গুটি গুটি দাগ পড়েছে।

তবে, কৃষি বিভাগ বলছে, সিম গাছে এই রোগ বীজ বাহিত। কিছু রয়েছে, জাব বোগ। কিন্তু কৃষি বিভাগের পরামর্শে বালাইনাশক ছিটিয়েও কোন প্রতিকার হচ্ছেনা কৃষক। তাই, কৃষক এবার সিম ফলন বিপর্যয়ের আশংকাই করছেন ।

দিনাজপুরের বিস্তৃর্ণ ক্ষেত জুড়ে এখন চোখে পড়ছে সিমের গাছ আর ফুল। কিন্তু, সিম ক্ষেতে অজ্ঞাত রোগের আক্রমণ দেখা দিয়েছে। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, সিম গাছে এই রোগ বীজ বাহিত। রয়েছে কিছু জাব রোগ। পাতা ও ফুল হলুদ বর্ণ ধারণ করে ঝরে যাচ্ছে। সত্য ফুটন্ত সিমে মধ্যেও গুটি গুটি দাগ পড়েছে। সিম গাছে অজ্ঞাত রোগের আক্রমন থেকে প্রতিকার পেতে কৃষক বালাইনাশক ছিটাচ্ছে। কিন্তু এতে কোন লাভ হচ্ছেনা তারা।

সদর উপজেলা উলিপুর এলাকার কুষক মোতাহারুল জানালেন,তিনি এবার দেড় বিঘা জমিতে সিম আবাদ করেছেন। ফুলও এসেছে,ভালো।কিন্তু,সিমির কুড়ি আসার সাথে সাথে তা কুকড়ে যাচ্ছে। হলুদ বর্ণ আকার ধারণ কওে ঝওে যাচ্ছেপাতা।

একই কথা জানালেন, ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম। এক ধরণের ভাইরাস আক্রমনে বিবর্ণ তার সিম ক্ষেত।বার বার কীটনাশক প্রয়োগেও কোন প্রতিকার হচ্ছেনা তিনি। বরং কীটনাশক কিনতে বাড়তি খরচ হচ্ছে তার। সিম গাছে এ রোগ প্রতিকারে কোন পরামর্শ পাচ্ছেনা বলে অভিযোগ তিনিসহ আরো বেশ কয়েকজন কৃষকের। কৃষি বিভাগের কোন কর্মকর্তা পৌছাঁছেন না তাদের কাছে। তাই, সিম ক্ষেত নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তারা। এমন অভিযোগ করলেন, অনেক কৃষকেই।

সিম অর্থকরী ফসলে পরিনত হওয়ায় অনেকের আগ্রহ বেড়েছে সিম চাষে।এক সময়ের পতিত-অনাবাদী জমিতেও সিম চাষে ঝুকেছে কৃষক। দিনাজপুরে এবার এক হাজার ৩’শ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে শীতকালীন সবজি সিম। কিন্তু অজানা রোগের কোন প্রতিকার না পেয়ে অনেক কৃষক সিম গাছ ক্ষেত থেকে তুলে ফেলছেন। ছেড়ে দিয়েছেন সিম চাষাবাদের আশা।

এর সত্যতা স্বীকার করে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. তৌহিদুল ইকবাল জানালেন, বীজ থেকে এ ভাইরাস জাতীয় রোগের আর্বিভাব। এছাড়াও রয়েছে, সিম গাছে রোগ “জাব”। এ রোগ প্রতিরোধে আমরা কৃষককে পরামর্শ দিচ্ছি। কিটনাশক ছাড়াও এ রোগ প্রতিকারে সাবান পানিও কাজে দেয়। আক্রমণের শুরুতে সাবান পানি ছিটিয়ে দিলেও কৃষক প্রতিকার পায়।

কৃষি বিভাগ বলছে, সিম গাছে আক্রান্ত এই রোগ বীজবাহিত বা জাব রোগ। কিন্তু কৃষকের কাছে এই রোগ রয়েছে এখনো অজ্ঞাত। এই রোগ থেকে এই গাছ নিস্তার না পেলে চলতি মৌসুমে সিম চাষ ব্যাহত হওয়ার আশংকাই করছে, কৃষিবিদরা।