সংবাদ শিরোনাম

চাঁদপুরে লঞ্চে অনৈতিক কার্যক্রম রোধে নিয়মিত টহলে থাকবে নৌ-পুলিশ | বিমানের টিকিটের জন্য জমানো টাকায় তরুণকে ইজিবাইক কিনে দিলেন সুমন | মৌলবাদী গোষ্ঠী ধর্মীয় সংগঠন করে রাজনৈতিক খায়েশ মেটাচ্ছে: শিক্ষা উপমন্ত্রী | ‘আওয়ামী লীগ-বিএনপি লড়াই নাই, দেশের মানুষ ভাই ভাই'- বাবুনগরী | নাগরিকদের বিনামূল্যে করোনা ভ্যাকসিন দেবে মালয়েশিয়া | ছেলের নামে টুর্নামেন্টের আয়োজন করে খেলোয়াড়দের পেটালেন ইউএনও! | ভাস্কর্য আমার বাবার হলেও টেনেহিঁচড়ে ফেলে দেবো: বাবুনগরী | মাহফিলে বক্তব্য না দিয়েই ঢাকায় ফিরে গেলেন মামুনুল হক | ঝিকরগাছায় ধানের বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে খুশির ঝিলিক | অনলাইনে ১৬ লাখ টাকার ফ্যান কিনে পেলেন ঝুট কাপড় ও ইট! |

  • আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গাদের ৩৪ কোটি ডলার সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র ইইউ ও ব্রিটেন

১১:৪১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০ আন্তর্জাতিক
Rohingya

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ রোহিঙ্গাদের জন্য ৩৪ কোটি ৩৫ লক্ষ ডলার সহায়তা দেয়ার কথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও ব্রিটেন। এর মধ্যে মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ২০ কোটি, ইইউ ৯ কোটি ৬০ লাখ ও বৃটেন দেবে ৪ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। বৃহস্পতিবার রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সহায়তা বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার উদ্যোগে আয়োজিত রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সহায়তা বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম অংশগ্রহণ করেন।

সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন চলাকালে মিয়ানমারে অন্য দেশের বিনিয়োগ প্রত্যাবাসন নিয়ে তাদের সদিচ্ছাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। তাছাড়া রোহিঙ্গাদের দীর্ঘদিন রাখার মত কোন পরিস্থিতি নেই, দ্রুততম সময়ে তাদের নিজ দেশে ফেরাতে হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

শীঘ্রই প্রত্যাবাসনের পরিবেশ তৈরিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাজ করার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি গভীর হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ২০১৮ সালে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি এবং বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আন্তরিক প্রচেষ্টা সত্ত্বেও আজ পর্যন্ত মিয়ানমারের রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাব এবং তার প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থতার কারণে একটিও রোহিঙ্গাকে প্রত্যাবাসন করা যায়নি।

গত তিন বছরে প্রত্যাবাসনের অগ্রগতির অভাবে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মধ্যে ব্যাপক হতাশার কারণ হয়ে ওঠে তারা পাচার, উগ্রপন্থীকরণ, মাদক ব্যবসা এবং অন্যান্য অপরাধমূলক ক্রিয়াকলাপে সংবেদনশীল হয়ে পড়েছে।

প্রত্যাবাসন শুরুর জন্য, আসিয়ান, জাতিসংঘ এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর সরকারে প্রতি আহ্বান জানান শাহরিয়ার আলম। তিনি রোহিঙ্গাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি করতে এবং তাদের ফিরে যেতে উৎসাহিত করতে পারে এমন পদক্ষেপ নেবার জন্য নেতৃত্ব গ্রহণে প্রস্তাব করেন।

মিয়ানমারের নীতিমূলক কর্মকাণ্ডের পরেও রোহিঙ্গাদের বাঁচাতে জাতিসংঘের ভূমিকাও দৃশ্যমান নয় বলে তার হতাশা প্রকাশ করেন। নিরবচ্ছিন্ন মানবিক সহায়তার পাশাপাশি, তিনি জরুরি প্রত্যাবাসন বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় রাজনৈতিক ইচ্ছা দেখানোর জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আহ্বান জানান।

ভার্চুয়াল সম্মেলনে ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়াসহ অন্যান্য আঞ্চলিক দেশগুলোও অংশ নেয়।